প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৮৯ শতাংশ ভারতীয় কনডম ব্যবহারে আগ্রহী নয়: সমীক্ষা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শারীরিক সম্পর্কের সময় কনডম ব্যবহারে ভারতীয়দের আগ্রহ একেবারে কম এবং পুরুষদের চেয়ে নারীর সংখ্যাটা আরও বেশি। সম্প্রতি পরিচালিত ‘কন্ডোমোলজি’ শীর্ষক এক সমীক্ষায় এমন তথ্য উঠে এসেছে।

সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, দেশটির ৮৭ শতাংশ পুরুষ কনডম ব্যবহারে অনিচ্ছুক। অপরদিকে মাত্র ৩ শতাংশ নারী সহবাসের সময় কনডম ব্যবহারে রাজি। জন্ম নিয়ন্ত্রণ, অবাঞ্ছিত গর্ভধারণ এড়ানো ও যৌনস্বাস্থ্যের জন্য কনডম গুরুত্বপূর্ণ হলেও ৯৭ শতাংশ নারী অনাগ্রহী।

কনডমের ব্যবহার নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে অনেক দেশে ‘কন্ডোমোলজি’ শীর্ষক এই সমীক্ষা হলেও এবার প্রথম ভারতে এ ধরনের একটি সমীক্ষা হলো। আর তাতেই ভারতীয় নারী-পুরুষদের মধ্যে কনডম ব্যবহারে চরম এই অনীহার বিষয়টি উঠে এসেছে।

মূলত কনজিউমার, কনডম ও সাইকোলজি— এই শব্দত্রয়কে সংক্ষিপ্ত করে ‘কন্ডোমোলজি’ নামটি দেওয়া হয়েছে। কনডমের বাজারে বড় অংশীদার ও তাদের সহযোগী কোম্পানিগুলোর গঠিত ‘কনডম অ্যালায়েন্স’ সমীক্ষা চালানোর পর এই পরিসংখ্যান হাজির করেছে।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, ভারতের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬৫ শতাংশেরই বয়স এখন ২৪ বা তারও কম। এমন একটি দেশে কনডম নিয়ে সচেতনতা বা কনডম ব্যবহারে মানুষের উৎসাহ কতটা তা জানতে সমীক্ষা চালানোর পর দেখা গেছে, এতে মানুষের আগ্রহ তলানিতে।

কোন কোন তথ্য উঠে এসেছে সমীক্ষা থেকে?

• সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, পুরুষদের মধ্যে যারা বয়সে তরুণ অর্থাৎ যাদের বয়স ২০ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে এবং যারা যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন, তাদের মধ্যে ৮০ শতাংশই শেষ বার শারীরিক সম্পর্কের সময়ে কনডম ব্যবহার করেননি।

• ভারতীয়দের মধ্যে গড়ে কনডম ব্যবহারের হার মাত্র ৫.৬ শতাংশ। সামাজিক ভাবধারা ও নীতিপুলিশির জন্যই কনডম ব্যবহারের হার এত কম। তাতে দেখা যাচ্ছে, বিয়ের আগে সহবাসের সময় মাত্র ২৭ শতাংশ পুরুষ আর ৭ শতাংশ নারী কনডম ব্যবহার করেছেন।

• মাত্র ১৩ শতাংশ পুরুষ ও ৩ শতাংশ নারী যৌন সম্পর্কের ক্ষেত্রে সব সময় কনডম ব্যবহারে আগ্রহী। অর্থাৎ ভারতের ৮৭ শতাংশ পুরুষ আর ৯৭ শতাংশ নারী কনডম ব্যবহারে আগ্রহী নন।

• সরকারিভাবে যৌনস্বাস্থ্য ও কনডম সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির প্রচার চালানোর পরও গত কয়েক বছরে কনডম বিক্রির হার বেড়েছে মাত্র ২ শতাংশ।

ভারতের ২০১৪-১৫ সালে পরিচালিত ‘ন্যাশনাল ফ্যামিলি হেল্থ সার্ভে-৪ (এনএফএইচএস ৪)-এর তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি এই রিপোর্টে যৌনতার প্রশ্নে পশ্চিমাদের সঙ্গে ভারতীয়দের বিস্তর সাংস্কৃতিক ও সামাজিক ফারাকের জন্য সচেনতার অভাবকে দায়ী করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত