প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বৈশ্বিক খাদ্যশস্য উৎপাদন বৃদ্ধির পূর্বাভাস

অনলাইন ডেস্ক: খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক বাজার বেশ চাঙ্গা। এ অবস্থায় ভালো দাম পাওয়ায় চাষীরা আবাদ বাড়াচ্ছেন। ফলে ২০২১-২২ মৌসুমে বিশ্বব্যাপী খাদ্যশস্য উৎপাদন বাড়বে বলে জানিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল গ্রেইনস কাউন্সিল (আইজিসি)। খবর ওয়ার্ল্ড গ্রেইন।

খাদ্যশস্যের উৎপাদন, মজুদের বিষয়ে নিয়মিত হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করে বৈশ্বিক সংস্থাটি। সম্প্রতি প্রকাশিত তাদের এক পূর্বাভাস বলছে, ২০২১-২২ মৌসুমে বিশ্বব্যাপী খাদ্যশস্যের উৎপাদন বেড়ে ২২৯ কোটি ২০ লাখ টনে দাঁড়াতে পারে। আগের পূর্বাভাসের তুলনায় যা ৫০ লাখ টন বেশি।

চলতি বছর বিশ্ববাজারে খাদ্যশস্যের দাম বেশ বেড়েছে। বিশেষ করে শিকাগো কর্ন ফিউচারসে দাম আট বছরের সর্বোচ্চে উঠেছে। এ অবস্থায় আইজিসি বলছে, খাদ্যশস্যের উচ্চমূল্য কৃষকদের আবাদ বাড়াতে উৎসাহী করছে। যে কারণে উৎপাদনের পরিমাণ আগের মৌসুমের তুলনায় ৬ শতাংশের মতো বাড়তে পারে।

ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মতো অন্যতম শীর্ষ উৎপাদক দেশগুলোয় উৎপাদন বৃদ্ধির সম্ভাবনা দেখছে আইজিসি, যা মোট উৎপাদন বাড়াতে প্রভাবক হিসেবে কাজ করবে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এ মৌসুমে ভারতে খাদ্যশস্য উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ১৫ কোটি ৮১ লাখ টন। যেখানে আগের পূর্বাভাসে উৎপাদন ধরা হয়েছিল ১৫ কোটি ৫৯ লাখ টন। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ায় উৎপাদন হতে পারে ৩ কোটি ৯৭ লাখ টনের মতো। যেখানে আগের পূর্বাভাসে উৎপাদন ধরা হয়েছিল ৩ কোটি ৮৪ লাখ টন।

আইজিসির পূর্বাভাসে বলছে, ২০২১-২২ মৌসুমে বিশ্বব্যাপী ভুট্টার উৎপাদন দাঁড়াতে পারে ১১৯ কোটি ৪০ লাখ টন। অন্যদিকে নতুন পূর্বাভাসে গমের উৎপাদন ধরা হয়েছে ৭৯ কোটি টন। যেখানে আগের পূর্বাভাসে উৎপাদন ধরা হয়েছিল ৭৭ কোটি ৪০ লাখ টন।

অন্যদিকে আইজিসির অন্য এক প্রতিবেদন বলছে, এ মৌসুমে বিশ্বব্যাপী খাদ্যশস্য ব্যবহারের পরিমাণ ৫ কোটি ৯০ লাখ টন বাড়বে। সব মিলিয়ে ২০২১-২২ মৌসুমে খাদ্যশস্যের চাহিদা থাকবে ২২৯ কোটি ৭০ লাখ টনের মতো। মূলত গম ও ভুট্টার চাহিদা বৃদ্ধি মোট ব্যবহারের পরিমাণ বাড়াতে প্রভাবক হিসেবে কাজ করবে বলে জানিয়েছে লন্ডনভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে খাদ্যশস্যের মাসভিত্তিক মজুদ ১ কোটি ৫০ লাখ টন কমে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছে আইজিসি, যা সাত বছরের সর্বনিম্ন। ফলে মৌসুম শেষে মজুদের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৫৯ কোটি ৫০ লাখ টন।

এ মৌসুমে খাদ্যশস্যের আমদানির ক্ষেত্রে চীন শীর্ষে থাকবে বলে জানিয়েছে আইজিসি। তবে ২০২০-২১ মৌসুমের মতো বৃদ্ধির সম্ভাবনা কম বলে মনে করছে তারা। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এ মৌসুমে বৈশ্বিক খাদ্যশস্যের বাণিজ্যের তিন বছরের মধ্যে প্রথম কমে ৪১ কোটি ৫০ লাখ টনে দাঁড়াতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত