প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আমরা আশা করি সরকার মানবিক বিবেচনায় খালেদা জিয়াকে বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দেবে: মির্জা ফখরুল

শিমুল মাহমুদ, মিনহাজুল আবেদীন: [২] বৃহস্পতিবার সকালে এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘করোনার কোভিডোত্তর যেটাকে পোস্ট কোবিড জটিলতা হয়, সেই জটিলতায় কিন্তু মাঝে মাঝে টার্ণ নেয় বিভিন্ন দিকে। উনার(খালেদা জিয়া) যে বয়স, উনার যে বিভিন্ন রোগ আছে, এর আগে উনি যে প্রায় তিন বছর কারাগারে ছিলেন, এখনো তিনি অন্তরীনই আছেন। এই অবস্থার প্রেক্ষিতে তার যেসমস্ত জটিলতা হয়েছে এবারে।‘সেজন্যই আমাদের দেশের প্রায় বেশির ভাগ মানুষের আকাংখা আছে ইচ্ছা আছে যে, তার চিকিতসাটা উন্নত কোনো হাসপাতালে হওয়া উচিত। বাংলাদেশে উন্নত হাসপাতালেই তিনি চিকিতসা নিচ্ছেন। আরো উন্নত বিদেশে হাসপাতালে চিকিতসা নেয়া সম্ভব কিনা। আপনারা জানেন যে, গতকাল তার পরিবার থেকে বিদেশে উন্নত চিকিতসার জন্যে যে অনুমতি দরকার সেই অনুমতি চাওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি, সরকার মানবিক কারণে তার বিদেশে চিকিতসার ব্যবস্থা করবেন এবং এই দেশের ১৮ কোটি মানুষের সবচেয়ে প্রিয় নেতার সুচিকিতসার ব্যবস্থা করবেন।

[৩] মির্জা ফখরুল আসলাম আলমগীর বলেন, আপনারা জানেন যে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ২৭ তারিখ থেকে এভারকেয়ার হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিতসাধীনে রয়েছেন। তাকে এখানে সর্বপ্রকার চিকিতসা দেয়া হচ্ছে এবং আমাদের চিকিতসকরা অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে তার চিকিতসা করছেন।

[৪] বুধবার রাতে খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে বিদেশে উন্নত চিকিতসা পাঠাতে অনুমতি চেয়ে আবেদনপত্র স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে পৌঁছিয়ে দেন।

[৫] খালেদা জিয়ার আশুর রোগমুক্তি কামনায় শুক্রবার বাদ জুম্মা সারাদেশে মসজিদে দোয়া মাহফিল ও বিভিন্ন উপাসনালয়ে প্রার্থনা সভার কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আগামীকাল শুক্রবার পবিত্র জামাতুল বিদা দিন আছে। সারাদেশে সমস্ত মসজিদ, বিভিন্ন প্রার্থনালয় যেগুলো আছে অন্যান্য ধর্মের সেগুলোতে আমাদের সমস্ত ইউনিটগুলো দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তির জন্য দোয়া অনুষ্ঠান করবেন, প্রার্থনা সভা করবেন। আমি সকল ইউনিটের নেতা-কর্মীদের প্রতি অনুরোধ করছে যে, তারা যেন জনগনকে নিয়ে দেশনেত্রীর রোগমুক্তির জন্য দোয়া চাইবেন।

[৬] বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রামণ মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতা, অযোগ্যতা এবং ভ্যাকসিন সংগ্রহ নিয়ে সরকারের ‘দুর্নীতি’র কঠোর সমালোচনা করেন মির্জা ফখরুল।

[৭] গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির উদ্যোগে সারাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রামণে নিহত দলীয় নেতা-কর্মীদের পরিবারকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ঈদ উপহার প্রদান উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানে মহানগর বিএনপির ১০জন নেতা-কর্মীর পরিবারকে ঈদের উপহার তুলে দেন বিএনপি মহাসচিব। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই পর্যন্ত সারাদেমে ৪২৫ জন নেতা-কর্মীরা মারা যায় বলে জানানো হয় অনুষ্ঠানে। কেন্দ্রীয় দফতরে দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্সের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিএনপির হাবিব উন নবী খান সোহেল, মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, যুব দলের এসএম জাহাঙ্গীর, ছাত্র দলের ফজলুর রহমান খোকন, স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তীর উদযাপন উপকমিটির নেতা আতিকুর রহমান রুমন, বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারি অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত