প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চেন্নাইয়ের কাছে কলকাতার হার

রাহুল রাজ : [২]২২১ রান তাড়া করতে নেমে ৩১ রানেই নেই পাঁচ উইকেট; এরপর নিশ্চয়ই আর জয়ের আশা করবেনা কোন দল। বরং ভাবনায় থাকবে মান বাঁচানোর। কিন্তু উল্টোপথে হাঁটলেন নাইট দুই পেস অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল ও প্যাট কামিন্স।
[৩]ঝড়ের গতিতে ব্যাট চালিয়ে দুজনেই তুলে নিলেন দ্রুততম ফিফটি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পর্যাপ্ত উইকেট না থাকাতে ৪২২ রানের রোমাঞ্চকর ম্যাচে শেষ ওভারে এসে চেন্নাইয়ের কাছো হার মানতে হলো কলকাতা নাইট রাইডার্সকে।
[৪]মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেটে ২২০ রান সংগ্রহ করে চেন্নাই সুপার কিংস। জবাবে ২০২ রানে অলআউট হয় কলকাতা নাইট রাইডার্স।
[৫]বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫.২ ওভারে ৩১ রানের মধ্যেই পাঁচ উইকেট হারায় কলকাতা নাইট রাইডার্স। যার মধ্যে চার উইকেটই নেন দীপক চাহার। প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে শূন্য রানে শুভমান গিল আউট হন। তৃতীয় ওভারে পঞ্চম বলে নীতীশ রানা চাহারের বলেই কট বিহাইন্ড হন। পঞ্চম ওভারের তৃতীয় ও শেষ বলে যথাক্রমে ইয়ন মর্গ্যান ও সুনীল নারিনের উইকেট তুলে নেন চাহার। ডোয়েইন ব্র্যাভোর জায়গায় সুযোগ পেয়ে এদিন রাহুল ত্রিপাঠির উইকেট তুলে নেন লুঙ্গি এনগিডি।
[৬]এরপরই পাওয়ারপ্লে-তে এই বিপর্যয় কাটানোর চেষ্টা করেন আন্দ্র রাসেল ও দীনেশ কার্তিক। ১১তম ওভারে ১০০ রান টপকায় কেকেআর। ২১ বলে অর্ধশতরান পূর্ণ করেন আন্দ্রে রাসেল। এরপরই গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক থ্রু দেন স্যাম কারান। কারানের বল লেগ সাইডে ওয়াইড ভেবে জাজমেন্ট দিতে গিয়ে বোল্ড হন রাসেল। ৩টি চার ও ছয়টি ছক্কার সাহায্যে ২২ বলে ৫৪ করেন রাসেল। ১১.২ ওভারে ১১২ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারিয়ে ফের চাপে পড়ে যায় কেকেআর।
এরই মধ্যে ১৫তম ওভারের শেষ বলে ২৪ বলে ৪০ রান করে দীনেশ কার্তিক আউট হতেই কেকেআরের যাবতীয় আশা শেষ হয়ে যায়। কার্তিকের ইনিংসে ছিল চারটি চার ও দুটি ছয়। এরপর ঝোড়ো ব্যাটিং করতে থাকেন প্যাট কামিন্স।
[৭]১৬তম ওভারে স্যাম কারানের বলে টানা তিনটি ছক্কা-সহ চারটি ছয় হাঁকান তিনি, এই ওভারে আসে ৩০ রান। শেষ চার ওভারে দরকার ছিল ৪৫ রান। শেষ ওভারে ২০ রান দরকার ছিল। প্রথম বলেই দুই রান নিতে গিয়ে রান আউট হন প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ। প্যাট কামিন্স ৩৪ বলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন। এরই সাথে নতুন এক রেকর্ড গড়ে কলকাতা। বিশ্বের প্রথম কোন তল যেখানে ৬ বা তার পরের পজিশনে নেমে তিন ব্যাটসম্যান ৪০ এর বেশি (রাসেল, কামিন্স ও কার্তিক) রান করার বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে।
[৮]এদিন টস জিতে চেন্নাই সুপার কিংসকে ব্যাট করতে পাঠান কলকাতা নাইট রাইডার্স অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। শতরানের ওপেনিং জুটির সুবাদে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ২২০ রান তোলে চেন্নাই সুপার কিংস। ৯টি চার ও চারটি ছয়ের সাহায্যে ৬০ বলে ৯৫ করে অপরাজিত থাকেন ফাফ দু প্লেসি।
[৯]এবারের আইপিএলে এদিনই সবচেয়ে বেশি রান উঠল চেন্নাই সুপার কিংসের ওপেনিং জুটিতে। ১২.২ ওভারে যখন ঋতুরাজ গায়কোয়াড়কে আউট করলেন বরুণ চক্রবর্তী সিএসকে তখন ১১৫ রান তুলে ফেলেছে। ৪২ বলে ৬৪ রান করে আউট হন ঋতুরাজ। ছটি চার ও চারটি ছয় মেরেছেন চেন্নাই সুপার কিংসের এই ওপেনার। আগের তিনটি ম্যাচে ফর্মে ছিলেন না। এদিন ফর্মে ফিরলেন দারুণভাবেই।
[১০]এবারের আইপিএলে প্রথম তথা আইপিএল কেরিয়ারে ১৭তম অর্ধশতরান পেলেন অপর ওপেনার ফাফ দু প্লেসি। ষষ্ঠ দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার হিসেবে এদিন টি ২০-তে ৬ হাজার রানও পূর্ণ করেন তিনি। দরকার ছিল ১ রান, প্যাট কামিন্সের বলে চার মেরে এদিন খাতা খোলার পাশাপাশি ছয় হাজারের মাইলস্টোনও স্পর্শ করেন দু প্লেসি। ঋতুরাজের আউটের পর মঈন আলির সঙ্গে ৫০ রানের পার্টনারশিপও গড়েন। ১২ বলে ২৫ রান করে আউট হন মঈন। দুটি চার ও একটি ছয়ের সাহায্যে ৮ বলে ১৭ রান করেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। রবীন্দ্র জাদেজা শেষ বলে ছক্কা মেরে অপরাজিত থাকেন।
[১১]সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
চেন্নাই সুপার কিংস: ২০ ওভারে ২২০/৩(ডু প্লেসিস ৯৫, ঋতুরাজ ৬৪; বরুন ১/২৭, নারাইন ১/৩৪)
কলকাতা নাইট রাইডার্স: ১৯.১ ওভারে ২০২/১০(কামিন্স ৬৬*, রাসেল ৫৪; চাহার ৪/২৯, এনগিদি ৩/২৮)

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত