প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মামুনুলের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিয়ের সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে

মাসুদ আলম : [২] সোমবার ৭ দিনের রিমান্ড নিয়ে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন ডিবি পুলিশ। রিমান্ডে মুখ খুলতে শুরু করেছেন তিনি । স্বীকারোক্তি দিয়েছেন একাধিক বিয়ে বিষয়ে। কথা বলেছেন সেদিন রিসোর্টকাণ্ড নিয়ে।

[৩] তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলেন, জানা যায়, প্রথম বিয়ে ছাড়া দুই জান্নাতকেই চুক্তিভিত্তিক বিয়ে করেছিলেন। স্ত্রীর পূর্ণ মর্যাদা দিতে পারবেনা এই শর্তে তাদের বিয়ের করেন তিনি। আর সেই দুই নারীই ডিভোর্সি। রয়েল রিসোর্টে শুরুতেই স্বীকার করলে প্রথম স্ত্রী আমেনা তৈয়ব বড় ধরনের কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলতেন বলে তার ধারণা ছিল। এ কারণে তাৎক্ষণিক স্বীকার করেননি। জিজ্ঞাসাবাদের প্রথম দিনই অন্য গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্যের সঙ্গে একথা বলেন মামুনুল। তবে কথিত দুই বিয়ের সাক্ষীদের শিগগিরই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকবে পুলিশ। একই সঙ্গে রিমান্ডে তাকে সহিংসতায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি অন্য বিষয়েও ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা যায়।

[৪]তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলেন, এখন পর্যন্ত মামুনুল প্রথম বিয়ে ছাড়া বাকি দুই বিয়ের স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেননি। এমনকী বিয়ের সাক্ষীদের নাম প্রকাশের ব্যাপারেও গড়িমসি করছেন। দ্বিতীয় জান্নাতের ভাই শাহজাহানের জিডি নিয়ে আমরা কাজ করছি।
ওই দুই নারীর সঙ্গে অনেক দিন ধরে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে আসছেন তিনি। তবে বিয়ে-সংক্রান্ত কোনো বৈধ কাগজপত্র তার কাছে নেই। কাবিনও নেই। ওই দুই নারীর ডিভোর্স হওয়ায় মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই তাদের দিকে এগিয়ে যান তিনি। একজনকে মোহাম্মদপুরের একটি মাদ্রাসায় চাকরিও দিয়েছেন। কাগজপত্র ও কাবিন না থাকা সত্ত্বেও বিয়ে কীভাবে বৈধ হলো- এমন প্রশ্নের উত্তরে অসংলগ্ন কথা বলেছেন মামুনুল হক।

[৫] মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে রোববার দুপুরে মামুনুল হককে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের তেজগাঁও বিভাগ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত