প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নিজস্ব উড়োজাহাজে স্বয়ংসম্পূর্ণ হচ্ছে বিমান: নতুন সাতটি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট চালু হবে

নিউজ ডেস্ক: লিজ নিয়ে আকাশপথের দিগন্ত প্রশস্ত এবং শিডিউল সচল রাখার দিন শেষ হচ্ছে। নিজস্ব এয়ারক্র্যাফট দিয়ে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে চলেছে বাংলাদেশ বিমান। অতীতের মতো হজ মৌসুমে লিজে উড়োজাহাজ এনে আর হজযাত্রী পরিবহন করতে হবে না। গত কয়েক মাসে চারটি সর্বাধুনিক প্রযুক্তির নতুন ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ কানাডার প্রখ্যাত উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডি হ্যাভিল্যান্ড বোম্বার্ডিয়ার অ্যারোস্পেস থেকে কিনে এনে যুক্ত করা হয়েছে বিমান বহরে। চার বছর আগে বিমানের সংখ্যা ছিল ১৪টি। সাতটি বেড়ে এখন দাঁড়িয়েছে ২১টিতে। ইতিমধ্যে স্মার্ট অ্যাভিয়েশন থেকে লিজে আনা একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ ফেরত না দিয়ে ক্রয় করেছে বিমান কর্তৃপক্ষ। কারণ ঐ উড়োজাহাজটি ফেরতকালে বিপুল অঙ্কের ভাড়ার বিল আসে, যা দিয়ে উড়োজাহাজটিই কিনে ফেলা যায়। ফলে ফেরত না দিয়ে সেটি ক্রয় করে নেয় বাংলাদেশ বিমান। এখন লিজের বিমান সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মাত্র তিনটিতে। একের পর এক নিজস্ব উড়োজাহাজ সংযোজনের মধ্য দিয়ে বহর শক্তিশালী করার পাশাপাশি বিমান তার রুট ও নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ঢাকা থেকে বিশ্বের ১৮টি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। আরো সাতটি নতুন আন্তর্জাতিক গন্তব্যে বিমানের ডানা উড়বে সহসাই।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী জানান, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস বহর শক্তিশালী হওয়ায় নতুন সাতটি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট চালু করা হবে। এর মধ্যে টরেন্টো, নিউ ইয়র্ক, টোকিও, গুয়াংজু, মালে, কলম্বো ও চেন্নাইয়ে ফ্লাইট চালু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তিনি বলেন, বিমানের বহর এখন আধুনিক ও তারুণ্যদীপ্ত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক আগ্রহ ও চেষ্টায় বাংলাদেশের বিমানবহরে যুক্ত হয়েছে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির নতুন ১২টি বোয়িংসহ ১৫টি উড়োজাহাজ। এখন নতুন রুট বাড়াতে হবে। বিমানের সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানান, পর্যাপ্ত সচল বিমান না থাকায় শিডিউল ঠিক রাখা কঠিন হয়ে পড়েছিল। প্রায়ই কোনো কোনো রুটে শিডিউল এলোমেলো হয়ে যেত। এখন পর্যাপ্ত বিমান থাকায় এ সমস্যা আর থাকবে না। হজ মৌসুমে সবচেয়ে জটিল পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয় প্রতি বছর। বাড়তি ফ্লাইটের চাপ সামাল দিতে হজ মৌসুমে উড়োজাহাজ লিজ নেয় বাংলাদেশ বিমান। যদিও বিমানের লিজ উড়োজাহাজ সংগ্রহ করা নিয়ে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির ঘটনাও ঘটেছে। নিজস্ব বিমানের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় এই পরিস্থিতির অবসান হবে। বিমান সূত্র বলছে, বর্তমানে বিমানবহরে মোট ২১টি উড়োজাহাজের মধ্যে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ইআর, চারটি বোয়িং ৭৮৭-৮, দুইটি বোয়িং ৭৮৭-৯, ছয়টি বোয়িং ৭৩৭ এবং পাঁচটি ড্যাশ ৮-৪০০ উড়োজাহাজ রয়েছে। বাংলাদেশ ও কানাডা সরকারের মধ্যে জিটুজি ভিত্তিতে ক্রয়কৃত নতুন চারটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজের প্রথমটি গত ২৪ নভেম্বর, দ্বিতীয়টি ২৭ ডিসেম্বর, তৃতীয়টি ২৪ ফেব্রুয়ারি, চতুর্থটি ৪ মার্চ হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছে। গত বছরের ১৫ জুলাই যুক্ত হয় আরেকটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ। নতুন কেনা চারটি উড়োজাহাজের নামই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্ধারণ করেছেন—‘ধ্রুবতারা’, ‘আকাশতরী’, ‘শ্বেতবলাকা’ ও ‘হংসমিথুন’। গত ১৪ মার্চ ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়ে ‘আকাশতরী’ ও ‘শ্বেতবলাকা’র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। পরিবেশবান্ধব এবং অধিক সুযোগ-সুবিধাসমৃদ্ধ এসব উড়োজাহাজে রয়েছে হেপা ফিল্টার প্রযুক্তি যা মাত্র ৪ মিনিটেই ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাসসহ অন্যান্য জীবাণু ধ্বংস করার মাধ্যমে উড়োজাহাজের অভ্যন্তরের বাতাসকে বিশুদ্ধ করে। এই ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজগুলো অভ্যন্তরীণ ও স্বল্প দূরত্বের রুটে ফ্লাইট ফ্রিকোয়েন্সি বৃদ্ধি করেছে। বিমানসংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইনস প্রতিষ্ঠানগুলো করোনায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সেই তুলনায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস দ্রুত পরিস্থিতি মোকাবিলা করে সংকট কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে। – ইত্তেফাক

সর্বাধিক পঠিত