প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রপ্তানিতে বিধিনিষেধ ভারতের, এশিয়ায় ভ্যাকসিনের হাহাকার, উন্নত দেশে অতিরিক্ত মজুদ পড়ে আছে

রাশিদুল ইসলাম : [২] চীন ও রাশিয়াকে টেক্কা দিয়ে ভারত কোভিড ভ্যাকসিন কূটনীতিতে এগিয়ে গেলেও এখন দেশটির মহারাষ্ট্রসহ কয়েকটি রাজ্যে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে হচ্ছে। অনেক দেশ ভারতের আশ্বাস পেয়ে বিকল্প টিকার উৎসের সন্ধান করেনি। ভারতে ফের মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলার পাশাপাশি দ্রুত ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। একারণেই টিকা রফতানি স্থগিত রেখেছে ভারত। টাইমস অব ইন্ডিয়া

[৩] জাপানের ভ্যাকসিন মন্ত্রী তারো কোনো বলেছেন, কেউ কেউ ভ্যাকসিনকে কূটনীতিতে কাজে লাগাচ্ছে, কেউ অগ্রাধিকার স্থির করছে। কেউ আবার তাদের জনসংখ্যার তুলনায় ৩ থেকে ৫ গুণ বেশি ভ্যাকসিন কিনে মজুত করছে। এর প্রয়োজন নেই। বিশ্বনেতাদের একসঙ্গে আলোচনায় বসে ভাবা উচিত, এটা ঘরোয়া নয়, গোটা দুনিয়ার ইস্যু এবং একসঙ্গে সমাধানের চেষ্টা করা উচিত।

[৪] ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার (এসআইআই) তৈরি অ্যাসট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন রপ্তানি সাময়িক স্থগিত রাখায় এশিয়ার একাধিক দেশ বিকল্প উপায় খুঁজছে। ভারতের সিদ্ধান্তে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহায়তায় বিশ্বে ভ্যাকসিন বিলি বন্টনের কর্মসূচিতে ভ্যাকসিন সরবরাহে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপিন্সের টিকা পেতে বিলম্ব হবে।

[৫] মার্চ ও এপ্রিলে কোভ্যাক্সে ৯০ মিলিয়নের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ছিল সেরামের। কিন্তু ভারত তা দিতে পারছে না। দক্ষিণ কোরিয়াকে ৬ লাখ ৯০ হাজার ডোজের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, পাবে ৪ লাখ ৩২ হাজার। তাও পৌঁছাতে এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহ হয়ে যাবে।

[৬] ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তে বেসরকারিখাতে ভ্যাকসিন আমদানিতে বিধিনিষেধ শিথিল করে বলেছেন, যত অর্থই লাগুক, তারা যেন সরবরাহ সুনিশ্চিত করে। ভিয়েতনামেও সরকারি অফিসাররা বেসরকারি কোম্পানিগুলিকে এগিয়ে আসার আবেদন করেছেন।

[৭] ইন্দোনেশিয়ায় কোভ্যাক্সের ১০.৩ মিলিয়ন ডোজ এসে পৌঁছাতে মে পর্যন্ত দেরি হবে।

[৮] ভারত ভ্যাকসিন রপ্তানি কতদিন স্থগিত থাকবে, বিস্তারিত জানায়নি, কিন্তু ইউনিসেফ বলেছে, ডেলিভারি আবার শুরু হতে পারে মে মাসে। ৬৪টি তুলনামূলক গরিব দেশ কোভ্যাক্স কর্মসূচির ওপর নির্ভরশীল।

[৯] এই পরিস্থিতিতে রাশিয়া, চীনের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে বিভিন্ন দেশ। ফিলিপিন্স, ইন্দোনেশিয়া চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের ওপর বহুলাংশে নির্ভর করছে। ৫০টি উন্নয়নশীল দেশ রাশিয়ার স্পুটনিক ৫ ভ্যাকসিনেও সম্মতি দিয়েছে।

[১০] সিনোফার্ম সংযুক্ত আরব আমিরাতে ভ্যাকসিন তৈরির কথাও ভাবছে।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত