প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মোদিকে লাল গোলাপের শুভেচ্ছা জানাতে প্রস্তুত টুঙ্গিপাড়া

সাবেত আহমেদ: [২] ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধান, দূর্বা, পিতলের কুলা, চন্দন ও ফুল দিয়ে বরণ করতে প্রস্তুত ওড়াকান্দি। মোদির আগমনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দির ঠাকুররাড়ি ও টুঙ্গিপাড়ার সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স।

[৩] সে সঙ্গে সকল ধরনের উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছে সরকারি দপ্তরগুলো, পাশাপাশি দুই স্থানের চতুর্দিকে বিশাল এলাকাজুড়ে কয়েকস্তরে নির্মিত হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা বেষ্টনী।

[৪] টুঙ্গিপাড়ায় মোদিকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুই প্রধানমন্ত্রী সমাধি সৌধ বেদীতে পুষ্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু’র প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন। বৃক্ষরোপন ও সমাধি কমপ্লেক্স ভবন পরিদর্শন এবং অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে যাবেন মতুয়া সম্প্রদায়ের তীর্থস্থান শ্রীধাম ওড়াকান্দি। সেখানে তাকে স্বাগত জানাবেন আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গোপালগঞ্জ-০২ আসনের সাংসদ শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

[৫] মোদির আগমনের বিষয়ে অল ইন্ডিয়া মতুয়া মিশনের প্রতিনিধি তন্ময় বিশ্বাস বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী, মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ২৬মার্চ শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঢাকায় আসবেন। পরের দিন সাতক্ষীরা শ্যামনগরের যশোরেশ্বরী কালিমন্দির দর্শন, গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা ও ভারত বাংলাদেশ মতুয়াদের যে মূল পীঠস্থান, যেখানে হরি-গুরুচাঁদের পদরেণুযুক্ত কর্মকান্ড জড়িয়ে আছে, সেই গুরুচাঁদ ঠাকুরের স্মৃতি বিজড়িত, হরিচাঁদ ঠাকুরের লীলাভূমিতে তিনি পদার্পণ করবেন এবং মন্দিরে ঠাকুরের বিগ্রহে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করবেন। এরপর বাংলাদেশের মতুয়া সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করবেন ও ঠাকুর পরিবারের সাথেও সৌজন্য সাক্ষাত করবেন বলে জানান তিনি।

[৬] অন্যদিকে ওড়াকান্দির ঠাকুরবাড়ির গদিনাশিন বা বর্তমানে ঠাকুর সচীপতি ঠাকুর মোদির আগমনে ভীষণ খুশি ও আবেগাপ্লুত। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদিজী বাংলাদেশে আসছেন সে সঙ্গে শ্রীধাম ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়িতে আসছেন।

[৭] শ্রী শ্রী হরি-গুরুচাঁদ মতুয়া মিশনের সভাপতি পদ্মনাভ ঠাকুর বলেন, পুরাতন কোনো তৈজসপত্র যেনো মোদির সংস্পর্ষে না যায়, সেজন্য হরিমন্দিরের গর্ভগৃহে যেখানে মোদি পূঁজা করবেন সেখানের সকল উপকরণগুলো নতুন করে ক্রয় করা হয়েছে।

[৮] বাংলাদেশ মতুয়া মহাসংঘের সভাপতি সীমা দেবী ঠাকুর বলেন, আমরা ঠাকুর বাড়ির মেয়েরা সব দিক দিয়ে প্রস্তুতি নিয়ে আছি । লালপেড়ে শাড়ি পরিধান করে ধান, দূর্বা, পিতলের বরণ কুলা, চন্দন ও ফুল দিয়ে তাকে বরণ করবো। তিনি আরো বলেন, ভারতের মত এত বড়ো একটি দেশের প্রধানমন্ত্রী ঠাকুর বাড়িতে আসছেন এতেই আমরা ধন্য।

[৯] গোপালগঞ্জ স্থানীয় সরকার প্রকৌশলের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. এহসানুল হক জানিয়েছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ি সংলগ্ন দু’টি হ্যালিপ্যাড, স্কুল মাঠে দু’টি এবং অভ্যন্তরীণ রাস্তা সমূহ নির্মাণ করা হয়েছে। পাশাপাশি ঢাকা-খুুলনা মহাসড়কের যে রাস্তাগুলো ঠাকুর বাড়িকে যুক্ত করেছে সেগুলোর কাজও ইতিমধ্যে সমাপ্ত হয়েছে।

[১০] নিরাপত্তার বিষয়ে গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা জানিয়েছেন, ওড়াকান্দি ও টুঙ্গিপাড়াতে ভিভিআইপিদের আগমনের কথা বিবেচনা করে আশপাশের সকল জায়গায় ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। নিবিড় পর্যবেক্ষণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

 

সর্বাধিক পঠিত