প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ওয়েলিংটনে পারবে কি বাংলাদেশ?

ডেস্ক রিপোর্ট : ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের পালে যে হাওয়া লেগেছে, তাতেই ডানেডিনের বিমর্ষতা কেটে গেছে। তৃতীয় ম্যাচ খেলতে তামিমরা এখন হাওয়ার শহর ওয়েলিংটনে। এই পরিবর্তনের হাওয়ায় তারা কি পারবেন নিজেদের ভাগ্য বদলে নিতে? ২০০৭ সাল থেকে যেটা নিজেদের অনুকূলেই রেখে দিয়েছে নিউজিল্যান্ড। তামিমদের এবারের নিউজিল্যান্ড সফরের উদ্দেশ্যই তো ম্যাচ জিতে হাওয়া বদলে দেওয়া। সিরিজ শুরুর আগেই যা বলে রেখেছেন অধিনায়ক তামিম। ফিল্ডিংয়ে অপ্রত্যাশিত ভুলগুলো না হলে ভাগ্যের শিকে ছিঁড়তে পারত ক্রাইস্টচার্চেও।

পারফরম্যান্সে উন্নতির গ্রাফটা ঊর্ধ্বমুখী রাখা গেলে জয় নামক সোনার হরিণের সঙ্গে দেখা হয়েও যেতে পারে ওয়েলিংটনে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে। মঙ্গলবার দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণীর মঞ্চে দাঁড়িয়ে তামিম যেমন বলেছেন, ‘এখানে উন্নতি করতে আসিনি। আমরা এখানে ম্যাচ জিততে এসেছি।’ অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেটে কাল তামিমরা তো চেষ্টা করবেনই ফলাফলের পালে জয়ের হাওয়া লাগাতে।

নিউজিল্যান্ডের রাজধানী ওয়েলিংটনে পৌঁছে গতকাল বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমাম জানান, খেলোয়াড়রা আগের চেয়ে ভালো। দ্বিতীয় ম্যাচের পর হারানো মনোবল কিছুটা হলেও ফিরে পেয়েছেন তারা। সবাই আশাবাদী তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে নিয়ে। দল ভালো করলে খেলোয়াড়দের মানসিকতায় পরিবর্তন আসা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। বিশেষ করে প্রথম ম্যাচে ১৩১ রানে অলআউট হয়ে ৮ উইকেটে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচের পারফরম্যান্স উজ্জীবিত করার মতোই। কিন্তু ম্যাচ জয়ের জন্য আগের ম্যাচের পারফরম্যান্স মূল্যহীন। কাল সম্পূর্ণ নতুনভাবে শুরু করতে হবে টাইগারদের। জিততে হলে অলআউট খেলতে হবে ১১ জনকেই। ওয়েলিংটনের কন্ডিশনে যেটা কঠিন।

তবে ভালো দিক হলো, ২০১৭ সালে টেস্টে বেসিন রিজার্ভে রোমাঞ্চকর কিছু স্মৃতি রয়েছে টাইগারদের। সাকিবের ডাবল সেঞ্চুরি, মুশফিকের সেঞ্চুরি এবং রেকর্ড জুটি হয়েছিল ওয়েলিংটনের পাহাড়ের পাদদেশের এ মাঠে। এই সফরে সাকিব না থাকলেও মুশফিক আছেন। গত ম্যাচের ব্যর্থতা পুষিয়ে দিতে চেষ্টা করবেন তিনি কালকের ম্যাচে।

বেসিন রিজার্ভে বাতাসের বেগ থাকে বেশি। কোনো কোনো সময় খেলা থামিয়ে মাটিতে বসে পড়তে হয় ক্রিকেটারদের। এই কন্ডিশনে কঠিন চ্যালেঞ্জ থাকে পেস বোলারদের জন্য বলের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখা। বেশির ভাগ পেসারই সুইংয়ের ওপর জোর দিয়ে থাকেন। স্বাগতিক বোলারদের জন্য যেটা অভ্যাস হয়ে গেছে। চ্যালেঞ্জটা তাই মুস্তাফিজদের জন্য। তবে তামিম, মুশফিকদের কাছ থেকে সঠিক দিকনির্দেশনা পেলে পরিস্থিতি মোকাবিলা করা কঠিন নাও হতে পারে তাসকিনদের। সে যা-ই হোক, বেসিন রিজার্ভে বেশির ভাগ সময় বোলাররাই শাসন করেন। এ ভেন্যুতে হওয়া ওয়ানডে ম্যাচের পর্যালোচনা থেকে সে চিত্রই মেলে। তিনশ প্লাস স্কোর আছে মাত্র একটি। আড়াইশ প্লাস রান হয়েছে ১০ ইনিংসে। এই মাঠে প্রথম ইনিংসের গড় রান ২১৭, আর দ্বিতীয় ইনিংসে ১৭৮।

টাইগারদের ভিডিও অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরণের ল্যাপটপে থাকা নতুন ভেন্যু সম্পর্কে খুঁটিনাটি সব তথ্যই হয়তো ক্রিকেটারদের কাছে পৌঁছে গেছে। সম্ভাব্য পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে আজ মহড়াও দেবেন তারা। তবে পরিসংখ্যানের চেয়েও টাইগারদের কাছে বেসিন রিজার্ভ নতুন চ্যালেঞ্জ অপরিচিত হওয়ায়। নিউজিল্যান্ডের এই মাঠে এখন পর্যন্ত কোনো ওয়ানডে খেলেনি বাংলাদেশ। টেস্ট খেলার প্র্যাকটিক্যাল অভিজ্ঞতাই তাই ভরসা তামিমদের। আসল কথা হলো, এই পর্যায়ে ক্রিকেট খেলা দলের জন্য ভেন্যুর চেয়েও আত্মবিশ্বাস থাকা বেশি প্রয়োজন। বাংলাদেশ দলের ঝুলিতে এ মুহূর্তে যেটা রয়েছে। সূত্র: সমকাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত