প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নোয়াখালীর বসুরহাটে ১৪৪ ধারা জারি

আতাউর অপু: সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে বলে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউল হক মীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি লাইভে এসে রাজাকার পরিবারের সদস্য বলে আখ্যায়িত করেন। এর প্রতিবাদে একরামবিরোধী নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র গ্রুপ মঙ্গলবার মাইজদী বালুর মাঠে প্রতিবাদ সভা ডাকেন।

এদিকে জেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগ শহীদ মিনারে একই সময় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা ডাকেন। এ নিয়ে শহরে তীব্র উত্তেজনা দেখা দেয়। বিকাল থেকে একরামুল করিম চৌধুরীর সমর্থকরা শহরে শোডাউন করতে থাকেন।

উত্তেজনার এক পর্যায়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার দুইপক্ষের সঙ্গে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে দুইপক্ষের কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছেন বলে জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খান জানান।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা ডিএসবি পরিদর্শক পদবির এক কর্মকর্তা জানান, জেলা শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অফিসের বিশেষ সূত্র জানায়, জেলা শহরের পরিস্থিতি দেখে একটি চিঠির মাধ্যমে পরবর্তী আদেশ না দেয়া পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে রাত ৯টায় জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খোরশেদ আলম খান বলেন, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন রাত ৯টার দিকে জানান, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ১৪৪ ধারা জারি করার মালিক। পুলিশ যে কোনো পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, জানমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে দৃঢ়পদক্ষেপ নিতে পিছপা হবে না।

উল্লেখ্য, এই দুই জন প্রতিনিধির ডাকা এর আগের কর্মসূচিকে ঘিরে গত শনিবার সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় সাংবাদিকসহ অন্তত ২৫ জন আহত হন। এরমধ্যে গুরুতর আহত সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির রবিবার ঢাকা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। একইদিনে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে জেলা কমিটি অব্যাহতি দেয় ও বহিষ্কারের সুপারিশ করে। পরে তার অব্যাহতির আদেশ প্রত্যাহার করা না করা নিয়ে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে চাপান-উতোড় চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত