প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অদক্ষ চালকদের দৌরাত্ব্য, শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়ক দু’ঘন্টা অবরোধ

স্বপন দেব: মৌলভীবাজার জেলায় অদক্ষ সিএনজি-অটোরিক্সা চালকদের কারণে প্রতিদিনই ঘটছে দূর্ঘটনা। সড়কে ঝড়ে পরছে তাজাপ্রাণ। আবার অনেকে হয়ে পরছেন জীবনের মতো পঙ্গু। কিন্তু এসব অদক্ষ চালকদের অনিয়মের প্রতিবাদ করলে যাত্রীদের হয়রানি হতে হচ্ছে। আর নানা অজুহাতে চালকরা সড়ক অবরোধ করে জনদূর্ভোগ সৃষ্টি করছে।

কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের উসমানগড় এলাকায় এক বৃদ্ধ মহিলাকে চাপা দেয় একটি সিএনজি অটোরিক্সা। এতে গুরুতর আহত হন ওই বৃদ্ধা। কিন্তু চালক গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১২টায় ঘটনার পর স্থানীয় লোকজনের সাথে এই সড়কে চলাচলকারী সিএনজি-অটোরিক্সা চালকদের কথা কাটাকাটি ও মারধোরের ঘটনায় ঘটে। চালকদের মারধোরের প্রতিবাদে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালকরা দুপুর সোয়া ২ ঘটিকা থেকে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশি হস্তক্ষেপে ৪ টায় সড়কে যান চলাচল শুরু হয়।

জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের পতনঊষারের ডাকবেল গ্রামের সরফর উল্ল্যার স্ত্রী অসহায় বৃদ্ধ মোমিনা বেগম (৬০) কে রাস্তার পাশে একটি সিএনজি-অটোরিক্সা চাপা দেয়। গাড়ির চাপায় মহিলার এক পা ভেঙ্গে যায় এবং গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন। ঘটনার পর স্থানীয়রা জড়ো হন এবং অদক্ষ চালকদের গাড়ি চালনায় ক্ষুব্দ হয়ে উঠেন।

এ সময় পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। একই সময়ে সড়কে চলাচলকারী কয়েকজন সিএনজি-অটোরিক্সা চালকের সাথে স্থানীয়দের কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজনের হামলায় শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির সহ সম্পাদক মো. সিরাজ মিয়া (৩৬) ও চালক মুক্তার মিয়া (৩৩) আহত হন। এঘটনার প্রতিবাদে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির উদ্যোগে শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়ক অবরোধ করা হয়। এতে যাত্রীসাধারণের চরম ভোগান্তি দেখা দেয়। প্রায় সোয়া ঘন্টা পর পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সিএনজি-অটোরিক্সা চালকদের সাথে কথা বলে যান চলাচল স্বাভাবিক করে।

এ ব্যাপারে শমশেরনগর উত্তরবাজার সিএনজি-অটোরিক্সা চালক সমিতির সভাপতি মো. মোস্তফা মিয়া বলেন, পুলিশের উপস্থিতিতে উসমানগড় এলাকায় শাহীন সহ কয়েকজন যুবক আমাদের গাড়ি আটকিয়ে চালকদের নামিয়ে টেনে হেচড়ে মারধোর করেছে। আমাদের দু’তিন জন চালক আহত হয়েছেন। পুলিশ এ বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই বাধ্য হয়ে আমরা প্রতিবাদ জানিয়েছি।

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরিফুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে দ্রুত সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করে দেয়া হয়েছে। আর অন্যান্য বিষয়গুলো তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অসহায় যাত্রীদের দাবি অদক্ষ চালকদের বিরুদ্ধে পুলিশকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। নাহলে এলাকাবাসীও আন্দোলনে যাবে।

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত