প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সারা দেশে এক হাজারের বেশি কমিটি গঠন, পক্ষপাতিত্ব আর ভাগাভাগি অভিযোগ ছাত্রদলের বিরুদ্ধে

শিমুল মাহমুদ: [২] দীর্ঘ ২৭ বছর ২০১৯ সালে কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হয় ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। দায়িত্ব পাওয়ার পর ২০১৯ সালের ২৩ ডিসেম্বর ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা দেন এ দুই নেতা। এরপর শুরু হয় বিভিন্ন স্তরের কমিটি গঠন। এরই মধ্যে অভিযোগ আসতে থাকে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। কমিটি গঠন নিয়ে আর্থিক লেনদেন পক্ষপাতিত্ব আর ভাগাভাগির অভিযোগ ওঠে। বাংলানিউজ

[৩] হাই কমান্ডের সুপারিশ রয়েছে এমন অজুহাতে অযোগ্য, অছাত্র, বিবাহিত, চাকরিজীবীসহ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নেতাকর্মীদের বিভিন্ন কমিটিতে স্থান দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

[৪] সূত্র জানায়, সিলেট, চট্টগ্রাম, মুন্সীগঞ্জ, নেত্রকোনা, খুলনা জেলাসহ বেশ কয়েকটি জেলার থানা কমিটি গঠনে আর্থিক লেনদেন হয়েছে। এসব থানায় নির্যাতিতদের বাদ দিয়ে ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে আতাতকারীদের পদায়ন করা হয়েছে।

[৫] সবচেয়ে বেশি অভিযোগ জমা পড়েছে পটুয়াখালীর গলাচিপা ও দশমিনা উপজেলার কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে। ছাত্রদলের সাবেক নেতা হাসান মামুনের একক ক্ষমতাবলে এ ধরনের বিতর্কিত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেছেন।

[৬] এ বিষয়ে অভিযোগ অস্বীকার করে কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, সারাদেশে এক হাজারের মতো কমিটি হয়েছে। দুই/এক জায়গার অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। এসব অভিযোগের পক্ষে শক্তিশালী কোনো প্রমাণ না পাওয়ায় ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। সে রকম যদি বড় ধরনের অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া যায়, তাহলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব। ১০ জন মিলে সংগঠন। সবার চারিত্রিক অবস্থা এক রকম না। ভালোমন্দ মিলিয়েই আমরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত