প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ হয়নি ৪৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন পাওয়ার প্লান্ট

গোলাম সারোয়ার: [২] করোনার পরিস্থিতির কারণে এক বছরেও সম্পন্ন হয়নি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ৪৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন আরো একটি বিদ্যুৎ প্লান্টের কাজ।

[৩] প্রায় ১৫’শ কোটি টাকা ব্যয়ে প্লান্টের কাজ ২০২০ সালের মধ্যে শেষ হবার কথা ছিলো কিন্তু বছরের প্রায় শুরুতেই (মার্চ মাসে) আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করতে আসতে চাইলে ৭০ জনের বিদেশী বিশেষজ্ঞ দলের ব্যাপারে আপত্তি তুলে স্বাস্থ্য বিভাগ।

[৪] ওই বিদেশীদের বাংলাদেশ আগমন ঠেকাতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেন জেলার সিভিল সার্জন।

[৫] গত বছরের ২৬ মার্চ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের যন্ত্রাংশ মেরামতের জন্য জার্মানী, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া ও সিঙ্গাপুর থেকে ৭০ সদস্যের বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দল আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে আসার কথা ছিলো।

[৬] ফলে বিশেষজ্ঞ দল আসতে না পারায় নির্ধারিত সময়ে প্লান্টটি চালু করা সম্ভব হয়নি। উল্লেখিত প্লান্টটি চালু করতে পারলে জাতীয় গ্রিডে আরো ৪৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সংযোজন হতো।

[৭] বর্তমানে ১৬৬০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিতে ১৫৬৮ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। প্লান্টটি চালু হলে উৎপাদন ২ হাজারের উপরে পৌঁছত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত