প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে ফটিকছড়িতে আ.লীগের মহাসমাবেশ

ওমর ফয়সাল: [২]  কুষ্টিয়ায় জতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে মহাসমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে ফটিকছড়ি আওয়ামীলীগ।

[৩] শনিবার (১২ ডিসেম্বর) উপজেলা সদরের বিবিরহাটে ফটিকছড়ি মুজিব শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের ব্যানারে অনুষ্ঠিত মহাসমাবেশে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহ আলম সিকদার।

[৪] উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান স্বপনের যৌথ সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তৌহিদুল আলম বাবু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মুহাম্মদ শাহজাহান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতা হোসাইন মুহাম্মদ আবু তৈয়ব, উপজেলা আওয়ামী লীগ’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস.এম সোলায়মান বি.কম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দিদারুল বশর চৌধুরী দুদু, আব্দুস সালাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমান উল্লাহ চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা সাজেদা সাফা, উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ’র সহ-সভাপতি সৈয়দা রিফাত আত্তার নিশু, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন্নাহার মুক্তা, উত্তর জেলা মৎস্যজীবী লীগের আহ্বায়ক হারুনুর রশিদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি নুর হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ’র সদস্য ইসমাইল মজুমদার, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাহাদত হোসেন সাজু প্রমূখ।

[৫] কুষ্টিয়ায় স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিশাল এ প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, পাকিস্তানের প্রেতাত্মা ও স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি আবারো বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তাদেরকে ১৯৭১ সালে যেভাবে প্রতিরোধ করে স্বাধীনতা অর্জন করেছি এখনও পাকিস্তানের দোসরদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করা হবে।


[৬] প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে বিশাল এক বিক্ষোভ মিছিল বিবিরহাট বাজারের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

[৭] এর আগে দুপুর থেকে উপজেলার সবকটি  ইউনিয়ন থেকে মিছিল সহকারে অংশ নেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী। একপর্যায়ে বিকাল ৩টার পর তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না সমাবেশস্থলে। এ সময় স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে উঠে পুরো এলাকা। ফটিকছড়ির স্মরণকালের বৃহত্তম এ সমাবেশে দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের বিপুল উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। এ সমাবেশে মহিলাদের উপস্থিতিও ছিল লক্ষণীয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত