প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘুমানোর আগে এক গ্লাস দুধে একটা খেজুর, কাজ দেবে এক সপ্তাহেই!

ডেস্ক রিপোর্ট : দুধের যেমন অনেক উপকারিতা তেমনই খেজুরও প্রয়োজনীয় খনিজ, ভিটামিনে পরিপূর্ণ। আর তাই গরম দুধে খেজুর মিশিয়ে খেতে পারলে তার উপকার অনেক। ব্রেকফাস্টে অনেকেই খেজুর খান। তেমনই রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে আবার এক কাপ গরম দুধ খাওয়ার অভ্যেস রয়েছে অনেকের। এই অভ্যেসে সামান্য বদল আনুন। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এক কাপ বা এক গ্লাস গরম দুধে দুটো খেজুর ফেলে খান। কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে দৃষ্টিশক্তি হবে সব সমস্যার সমাধান। এছাড়াও ত্বক ভালো থাকবে, বার বার ঠান্ডা লাগবে না, সেই সঙ্গে ঘুমও ভালো হবে। এছাড়াও খেজুরের মধ্যে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধেও সাহায্য করে। মন ভালো রাখতেও উপকারী দুধ-খেজুর। একসাথে দুধ খেজুর মিশিয়ে খেলে যে যে উপকারিতা পাবেন, একবার নজর বুলিয়ে নিন।

 

শরীরে এনার্জি দেয়

খেজুরের মধ্যে রয়েছে প্রাকৃতিক শর্করা। দুধে রয়েছে ক্যালসিয়াম আর ভিটামিন সি। আর একসঙ্গে দুটো মিশলে তার পুষ্টিগুণও বেড়ে যায় অনেকখানি। তাই দুধের মধ্যে খেজুর মিশিয়ে খেতেই পারেন। শরীর দুর্বল লাগা, মাথা ঘোরা এসব থেকে মুক্তি পাবেন। এছাড়াও যাঁরা জটিল কোনও অসুখে ভুগছেন তাঁরাও এই দুধ খেলে ভালো ফল পাবেন। পেট পরিষ্কার থাকবে।

চোখের সমস্যায়

খুব অল্প বয়সেই অনেকের চোখে বেশি পাওয়ার এসে যায়। এদিকে বয়স হলে চোখে ছানি পড়ার মতো সমস্যা অনেকেরই হয়। আর তাই দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতেও এই খেজুর দুধ খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। এছাড়াও চোখে আঞ্জনির সমস্যায়, যাঁরা একটানা কম্পিউটারের সামনে কাজ করেন তাঁদেরও খেজুর দুধ খেতে বলছেন চিকিৎসকরা।

ওজন বাড়াতে

অনেকেই আছেন যাঁরা ওজন বাড়াতে চান। ওষুধ, খাবার খেয়েও কাজ হচ্ছে না। তাঁরা এই খেজুর দুধ খেতে পারলে বেশ ভালো। কারণ এটি খুবই স্বাস্থ্যকর। টানা বেশ কয়েক সপ্তাহ খেলে ওজন বাড়বে। এছাড়াও শরীরের জেল্লা বাড়বে।

ডায়াবিটিসেও উপকারী

দুধ এবং খেজুর খাওয়া রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বেশ উপকারী হতে পারে। অনেকে দুধে ভেজানো খেজুরও খান। এছাড়াও হাড় শক্তিশালী করে দুধ-খেজুর। মাংসপেশী তৈরি করতেও খুব সাহায্য করে দুধ।

ত্বক এবং চুলের জন্য কার্যকর

দুধ এবং খেজুর ত্বক আর চুলের জন্য খুব উপকারী হতে পারে। ত্বকের দাগ ছোপ দূর করে। ত্বকের হারিয়ে যাওয়া জেল্লা আবার ফিরিয়ে আনতেও রয়েছে খেজুরের ভূমিকা। এছাড়া ত্বকের ভিটামিনের চাহিদা পূরণ করে খেজুর। যাঁদের অতিরিক্ত চুল পড়ছে তাঁরাও একবার খেয়ে দেখতে পারেন এই খেজুর দুধ।

 

 

 দাঁত:

দাঁত ক্ষয়ে যাওয়া, দাঁতে পোকা, হলুদ ছোপ পড়ার মতো দাঁতের যে কোনও সমস্যায় রোজ দুধ খেলে এক-দু’দিনের মধ্যেই উপকার পাবেন। দুধে থাকা ক্যালসিয়াম দাঁতের স্বাস্থ্য যেমন ভাল রাখে, তেমনই দুধ স্যালাইভা উত্পাদনে সাহায্য করে।

 

ডিহাইড্রেশন:

দুধ শরীর রি-হাইড্রেট করতে সাহায্য করে। যদি ডিহাইড্রেশনের সমস্যায় ভোগেন তাহলে এক গ্লাস দুধ খেয়ে নিন। অনেকটা সুস্থ বোধ করবেন।

 কোষ্ঠকাঠিন্য:

যদি আপনি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা ভোগেন ও ডেয়ারি প্রডাক্টে অ্যালার্জি না থাকে তা হলে রাতে ঘুমনোর আগে এক গ্লাস গরম দুধ খান।

 প্রি মেনস্ট্রুয়াল সিন্ড্রোম:

শরীরে ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়ামের মাত্রা ঠিক থাকলে প্রি মেনস্ট্রুয়াল সিন্ড্রোমের সমস্যা হয়। তাই পিরিয়ডের সময় পেট ব্যথা, অ্যাসিডিটির সমস্যা হলে খেয়ে নিন এক গ্লাস দুধ।

 স্ট্রেস:

যদি অতিরিক্ত স্ট্রেসে ভোগেন তাহলে রাতে ঘুমনোর আগে হালকা গরম দুধ খান। দুধে থাকা এসেনশিয়াল ভিটামিন ও মিনারেল ফিটনেস বাড়ায়, স্ট্রেস দূরে রাখতে সাহায্য করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত