প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] তৃতীয় দফায় যুদ্ধবিরতি চুক্তি স্বাক্ষর করলো আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান

লিহান লিমা: [২] স্থানীয় সময় রোববার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের সরকারের যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, মানবিক ত্রাণ সহায়তার জন্য নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে স্থানীয় সময় সোমবার সকাল ৮টা থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হবে। আল জাজিরা/ফ্রান্স২৪

[৩]২৯ অক্টোবর দীর্ঘমেয়াদী সমাধানের লক্ষ্যে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে পুনরায় বৈঠক করবেন মার্কিন পররাষ্ট্রসচিব স্টিফেন বিয়েগুন।

[৪]মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দুইপক্ষকেই যুদ্ধবিরতি চুক্তির জন্য অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন,‘এর ফলে অনেক জীবন রক্ষা পাবে।’

[৫] এর আগে ফ্রান্স ও রাশিয়ার মধ্যস্থতায় দুই দফা যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয় আর্মেনিয়া-আজারবাইজান । দু’বারই দু’পক্ষ একে অন্যের ওপর অভিযোগ এনে যুদ্ধবিরতি ভঙ্গ করেছে।

[৬]সর্বশেষ যুদ্ধবিরতি ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা আগে আর্মেনিয়া জানিয়েছে, তাদের সামরিক বাহিনীর অন্তত ৯৭৪ সদস্য মারা গেছে। নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে সামরিক আইন জারি থাকায় আজারবাইজান তাদের সামরিক বাহিনীর ক্ষয়ক্ষতির কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি। শুধু বলেছে, তাদের ৬৫ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত ও তিন শতাধিক আহত হয়েছে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন জানিয়েছেন, এ সংঘাতে এরইমধ্যে উভয়পক্ষের অন্তত পাঁচ হাজার মানুষ নিহত হয়েছে।

[৭] এদিকে দুই প্রতিবেশি দেশের যুদ্ধে নিজেদের ক্ষয়ক্ষতি এড়ানোর জন্য আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার সঙ্গে সীমান্তে সামরিক উপস্থিতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ইরান। এর আগে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার গোলাবর্ষণের সময় ইরানের সীমান্তবর্তী একটি অঞ্চল বিধ্বস্ত হয়। ওই ঘটনায় দুই দেশের কাছেই কড়া প্রতিবাদ জানায় তেহরান।

[৮]গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে নাগারনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। আন্তর্জাতিকভাবে অঞ্চলটির মালিকানা আজারবাইজানের। কিন্তু বহুবছর ধরে সেটি আর্মেনিয়া শাসন করে আসছে। ১৯৯৪ সালের যুদ্ধের পর থেকে সেখানে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত