প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোচিং সেন্টারের আড়ালে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল সনদ তৈরি ও বিক্রি: চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

সুজন কৈরী : [২] ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জাল সনদ ও সীল প্রস্তুতের অভিযোগে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তারা হলেন- দারুল ইহসান ইউনিভার্সিটির কন্ট্রোলার কামরুজ্জামান মো. সালাম (৫৭), তার স্ত্রী রুমিনা আক্তার (৪০) ও সহযোগী মাহমুদুল হাসান সোহাগ (৩৩)।

[৩] রাজধানীর ডেমরার সারুলিয়া এলাকা থেকে গত শনিবার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২১টি জাল সনদ ও বিভিন্ন ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের ৫৩টি সিল উদ্ধার করা হয়েছে।

[৪] সোমবার সিআইডির সিনিয়র এএসপি (মিডিয়া) জিসানুল হক জানান, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডসহ দেশের বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জাল সনদ বিক্রি করছিলেন। কিছু সনদ তারা বিক্রির জন্য নিজের কাছে রাখেন। সিআইডির একটি টিম চক্রের প্রধান কামরুজ্জামান, তার সহযোগী রুমিনা ও সোহাগকে সারুলিয়ার সাসসেক কোচিং সেন্টার থেকে গ্রেপ্তার করে।

[৫] সিআইডি’র কর্মকর্তা জিসানুল হক বলেন, কামরুজ্জামান আগে দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়ের কন্ট্রোলার পদে দায়িত্বপালন করতেন। ২০১৬ সালের ১৬ই জুলাই দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যাক্রম বন্ধ করে দিলে কামরুজ্জামান ও তার স্ত্রী রুমিনা রাজধানীর ৩ নম্বর ইন্দিরা রোডে হোমোসেপিয়েন্স নামে কোচিং সেন্টার চালাতেন। ওই কোচিংয়ের আড়ালে তারা জাল সনদ তৈরি ও বিক্রির কারবারে জড়িয়ে পড়েন। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে শেরে বাংলানগর থানায় মামলা করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত