প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রথম প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে তীব্র আক্রমণাত্মক ট্রাম্প-বাইডেন, দু’জনকে সামলাতে হিমশিম খেলেন উপস্থাপক

লিহান লিমা: [২] আগামী ৩ নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ক্লিভল্যান্ডে প্রথম বিতর্কে মুখোমুখি হন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেন। এদিন সুপ্রিমকোর্টের মনোনয়ন, করোনা ভাইরাস মহামারি, বর্ণবাদ, জলবায়ু পরিবর্তন ও মেইলের মাধ্যমে ভোটদান নিয়ে বিতর্ক করেছেন ট্রাম্প ও বাইডেন। সিএনএন/এএফপি/বিবিসি

[৩]দেড় ঘন্টার এই বিতর্ককে ‘বিশৃঙ্খলপূর্ণ’ বলে অভিহিত করেছে সিএনএন। একে অপরকে তীব্রভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করেন। দুজনকে সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে উপস্থাপক ওয়ালেসকে। ট্রাম্পকে কয়েকবার ধমক দিয়ে চুপ করতে বলেন বাইডেন। এদিকে ট্রাম্প বারবার বাইডেনের কথার মধ্যে ঢুকে পড়েন। ক্রিস ওয়েলস এই সময় হাত উঁচিয়ে ট্রাম্পকে বলেন, ‘আপনি বিঘ্ন সৃষ্টি করছেন’। ট্রাম্প পাল্টা উত্তর বলেন, ‘তিনিও করছেন।’

[৪]বাইডেনকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে ট্রাম্প বলেন, আপনি খুব একটা স্মার্ট নন, জো। বাইডেন এসময় ট্রাম্পকে ‘আপনি চুপ করবেন’ বলে ধমক দিয়ে বলেন, এটা প্রেসিডেন্সিয়ালসুলভ আচরণ নয়। বাইডেন এক পর্যায়ে দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলে ওঠেন, ‘এই ভাঁড়টা কী করার চেষ্টায় আছে, সে বিষয়ে আপনাদের কোনো ধারণা আছে?’ এই সময় ট্রাম্পকে তিনি ‘দায়িত্বহীন, মিথ্যেবাদী, সঙ ও পুতিনের পোষা কুকুর’ বলেও আক্রমণ করেন। ট্রাম্প এগুলো শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন।

[৫]বিতর্কে মহামারী নিয়ে বাইডেন বলেন, করোনা নিয়ে প্রেসিডেন্টের কোনো পরিকল্পনা ছিল না। এর জবাবে ট্রাম্প বলেন, এটা ছিল চীনের ভুল। তবে আমরা দুর্দান্ত কাজ করেছি। এ সময় ট্রাম্প আরো বলেন, বাইডেন এমন পরিস্থিতিতে পুরো দেশ বন্ধ করে দিতেন এবং দেশকে অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দিতেন। বাইডেন ক্ষমতায় থাকলে ১০ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হতো। এদিকে বিতর্কের সময় দর্শকসারির নিয়ম না মেনে ট্রাম্প পরিবারের কিছু সদস্য মাস্ক পরিধান করেন নি।

[৬]ট্রাম্পের ১০ বছর ধরে আয়কর না দেওয়ার বিষয়ে বিতর্কে বাইডেন বলেন, আপনি মার্কিন ইতিহাসে সবচেয়ে বাজে প্রেসিডেন্ট। একজন স্কুলশিক্ষকও আপনার চেয়ে বেশি আয়কর দেন। উত্তরে ট্রাম্প দাবী করেন তিনি মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার কর দিয়েছেন। কিন্তু একজন ব্যবসায়ী হিসেবে বুদ্ধি খাটিয়ে তিনি যথাসম্ভব কম আয়কর দেন।

[৭] যুক্তরাষ্ট্রে দাঙ্গা ও সহিংসতার জন্য শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদী ও মিলিশিয়া গোষ্ঠিদের নিন্দা জানাবেন কি না এ বিষয়ে ট্রাম্পকে প্রশ্ন করেন ক্রিস ওয়ালেস। ট্রাম্প উত্তরে উল্টো মার্কিন শহরগুলোতে সহিংসতার জন্য বামপন্থী গোষ্ঠিগুলোকে দায়ী করেন। তবে ক্রিস ওয়েলস বলেন, ডানপন্থীরা এটি করছে, স্যার। বাইডেন এ সময় বলেন, হ্যাঁ তারা করেছে, স্বীকার করুন। কিন্তু ট্রাম্প বলেন, এটি ডানপন্থীরা নয়, বামপন্থীরা করছে।

[৮] দ্বিতীয় এবং শেষ বিতর্কটি অনুষ্ঠিত হবে ১৫ ও ২২ অক্টোবর। ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও কমলা হ্যারিসের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে ৭ অক্টোবর। ১৯৬০ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীদের বিতর্কের প্রথা চলে আসছে।

সর্বাধিক পঠিত