প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গোপালগঞ্জ পৌরসভার বতমান ও সাবেক কাউন্সিলর সমথকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

আসাদুজ্জামান বাবুল: [২] এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের ঘটনা নিয়ে মসজিদ থেকে মাইকিং করে লোক জড়ো করে গোপালগঞ্জ পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের বতমান ও সাবেক কাউন্সিলরের সমথকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ইট পাটকেলের আঘাতে উভয় দলের কমপক্ষে ৭/৮ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতক্ষ্যদর্শী।

[৩] মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে বালু রাখা নিয়ে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়েছে।

[৪] প্রতক্ষ্যদর্শীর বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহম্মদ ছানোয়ার হোসেন জানিয়েছে, মুখোমুখি অবস্থানে থাকা উত্তেজিত দু-দল গ্রামবাসীকে নিয়ন্ত্রণে আনতে উপজেলা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

[৫] পুলিশ ও প্রতক্ষ্যদর্শী জানিয়েছে, গেলো পৌর নির্বাচনে ৯ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর কমেট সিকদার পরাজিত হওয়ার পর বতমান কাউন্সিলর আল-আমিন মিয়া ও তার সমথকদের সঙ্গে সম্পর্কের দুরত্ব বাড়ে। শালিস বৈঠকসহ নানান সামাজিক কমকাণ্ডে একে অপরের মধ্যে শুরু হয় দলাদলি। এক সময় তা প্রকাশ্য রুপ নেয়। তারই ধারাবাহিকতায় আসন্ন পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের বতমান ও সাবেক কাউন্সিলরের সমথকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। কার কত পেশি শক্তি আছে তা প্রমান করতে উপজেলা এলাকায় উভয়ের সমথকরা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় জড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি এক সময় ছড়িয়ে পড়ে গোটা উপজেলা এলাকায়। এ সময় একে অপরের ইটপাটকেলের আঘাতে কমপক্ষে ৭/৮ জন আহত হয়। ঠিক এমন সময় পুলিশ প্রশাসন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছালে উভয়ের সমথকরা পিছু হটে। বেলা আড়াইটার দিকে শেষ খবর পাওয়া পযন্ত উত্তেজিত দু-দল গ্রামবাসী মুখোমুখি অবস্থানে থাকলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

[৬] ঘটনার বিস্তারিত জানতে গোপালগঞ্জ পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের বতমান ও সাবেক কাউন্সিলরের সঙ্গে একাধিবার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাদের ফোন ব্যাস্ত পাওয়া গেছে। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত