প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মেঘনার ভাঙন রোধে প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় আ.লীগ নেতা

মেঘনার ভাঙন রোধ-সাজু

আমজাদ হোসেন : [২] লক্ষ্মীপুরের কমলনগর-রামগতি উপজেলা দুটি দীর্ঘ তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে মেঘনার নদী ভাঙনে কবলিত। তীব্র ভাঙনে উপজেলার দুটির এক তৃতীয়াংশ বিলীন হয়ে গেছে।

[৩] এতে ফসলী জমি, বাজার, স্কুল-কলেজ, মসজিদ ও মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ স্থাপনা বিলীন হয়েছে এবং বেড়ি বাঁধ না থাকায় জোয়ারের পানি উপজেলা ৪০টি গ্রামে প্লাবিত হচ্ছে।দীর্ঘ ৩৭ কি.মি. নদী ভাঙনে কবলিত। ভাঙন রোধে মাত্র কিছু কাজ হলেও এটি স্থায়ী নয়।

[৪] কমলনগর-রামগতি রক্ষায় এলাকার জনগন বিভিন্ন সময়ে বিক্ষোভ, মানববন্ধনসহ গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচী পালন করছে। বাঁধে বিভিন্ন আশ্বাস দিলেও বাঁধ হচ্ছে! হচ্ছে! বলে হচ্ছে না।

[৫] কমলনগর-রামগতি সংসদ সদস্য মেজর (অব:) আবদুল মান্নান লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) উপজেলার এমপি হওয়ার পর নতুন করে বাধঁ নির্মাণে প্রকল্প তৈরি করে কাজ শুরু করেন।

[৬] মন্ত্রণালয়ে এ নদী বাধেঁর ফাইল নিয়ে বিভিন্ন সময় মন্ত্রী, রাজনৈতিক নেতা, সচিব পর্যায়ে সব সময় যোগাযোগ করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অব:) আবদুল মান্নান ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় উপ-কমিটির যুব ও ক্রীড়া সহ-সম্পাদক এবং কমলনগর-রামগতির কৃতি সন্তান আবদুজ্জাহের সাজু।

[৭] কেন্দ্রীয় নেতা সাজু জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি ৮ তারিখে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে প্রকল্পটি পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ে পৌঁছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অব) আবদুল মান্নানের পরামর্শে আমার চেষ্টায় প্রকল্পটি সুফল পেতে শুরু করে। বর্তমানে নতুন প্রকল্পটি ডিপিপিতে প্রায় সাড়ে ৩১ কি. মি. বাঁধের জন্য ৩১’শ ৯৭ কোটি ২২ লাখ টাকার প্রকল্পের ফাইলটি পিইসি (PEC) মিটিং এ স্বাক্ষর হওয়ার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যাহা পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সহকারি সচিব সাইফুর রহমানের দপ্তরে রয়েছে। খুব শ্রীঘ্রই পিইসি (PEC) মিটিং এ উপস্থাপন করা হবে। পিইসি মিটিং এ পাশ হলেই তা একনেকে যাবে। এতে সার্বক্ষনিক খোঁজ রাখা হচ্ছে।

[৮] সাজু আরও জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, পরিকল্পনা মন্ত্রী আবদুল মান্নান এমপি ও একনেক কমিশনের সদস্য জাকের হোসেন আকন্দ ফোনে যোগাযোগ স্থাপন করেন এবং পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিব সাইফুর রহমানের সঙ্গে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রক্ষা করছেন সংসদ সদস্য মেজর (অব:) আবদুল মান্নান, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুজ্জাহের সাজু।

[৯] তিনি আরও বলেন, মহামারী করোনার সময়ে বিভিন্ন দপ্তরে, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও মন্ত্রী সচিবদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করছি। আশা করি শ্রীঘ্রই পিইসি (PEC) মিটিং এ প্রকল্পটি পাশ হবে।

[১০] মেজর (অব:) আবদুল মান্নানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, সংসদ সদস্য হওয়ার পর কমলনগর-রামগতি রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছি। নদী বাঁধে নতুন করে ডিপিপি তৈরি করতে সময় লেগেছে। আশাকরি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রকল্পটি একনেকে পাশ হবে।এসময় তিনি এলাকার সবাইকে ভিডিও কনফারেন্সে বিষয়গুলো অবহিত করেন।সম্পাদনা : হ্যাপি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত