প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দেড় লাখ মেট্রিক টন মেরিন ফুয়েল আমদানিসহ ক্রয় কমিটিতে দুই প্রস্তাব অনুমোদন

সোহেল রহমান: [২] এতে মোট ব্যয় হবে ৫৬৫ কোটি ৮১ লাখ টাকা। বুধবার সচিবালয়ে ‘সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকে এ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়। ভার্চুয়াল এ সভায় সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

[৩] বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, চলতি পঞ্জিকা বছরের জুলাই-ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ের জন্য সরকারি পর্যায়ে (জি-টু-জি) দেড় লাখ মেট্রিক টন মেরিন ফুয়েল আমদানি করা হবে। ‘বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন’ (বিপিসি) এই ফুয়েল আমদানি করবে। জ্বলানি তেল আমদানির বর্তমান নীতি অনুযায়ী, চাহিদার অর্ধেক জি-টু-জি পদ্ধতিতে এবং অবশিষ্ট অর্ধেক আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে আমদানির কথা রয়েছে। বৈঠকে তাই ৭৫ হাজার মেট্রিক টন করে এ-সংক্রান্ত দুটি পৃথক প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়েছিল। কিন্তু যেহেতু আন্তর্জাতিক বাজারে বর্তমানে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে, তাই চাহিদার পুরোটাই অর্থাৎ ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন মেরিন ফুয়েল জি-টু-জি-এর আওতায় কেনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

[৪] জানা যায়, বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্ত মোতাবেক সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরের ‘পিটিটি ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডিং পিটিই লিমিটেড’ থেকে ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন মেরিন ফুয়েল (০.৫% সালফার) আমদানি করা হবে। এতে মোট ব্যয় হবে ৪৩৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

[৫] প্রসঙ্গত: বৈঠকে জানানো হয় যে, বিপিসি কর্তৃক ইতোপূর্বে ০.৫% ‘সালফার’ মাত্রার মেরিন ফুয়েল আমদানি করা হয়নি। ‘ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশন’-এর নীতিমালা অনুযায়ী, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ০.৫% ‘সালফার’ মাত্রার মেরিন ফুয়েল ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

[৬] বৈঠকে অপর প্রস্তাবটি ছিল ২০২১ শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক স্তরের (৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণির) বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনের ০১-৯৮টি লটের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহ দরপ্রস্তাব অনুমোদন। প্রস্তাবের আওতায় তিন শ্রেণীর জন্য মোট পাঠ্যপুস্তকের সংখ্যা হচ্ছে ৭ কোটি ২০ লাখ ৯ হাজার ৩৭৩টি। এতে মোট ব্যয় হবে ১৩২ কোটি ৪১ লাখ ৫১ হাজার টাকা। পুরো দরপত্রটিকে ৯৮টি লটে ভাগ করা হয়েছে। এর বিপরীতে মোট আবেদন জমা পড়ে ১ হাজার ২২টি। এর মধ্যে রেসপনসিভ বিবেচিত হয় ১ হাজার ২০টি। পরবর্তীতে দরপত্র মুল্যায়ন কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে এদের মধ্যে থেকে সর্বনি¤œ দরদাতাদের মনোনীত করা হয়।

[৭] এর আগে ‘অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকে তিনটি প্রস্তাব নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। এগুলো হচ্ছেÑ ঢাকা থেকে আড়াইহাজার-বাঞ্ছারামপুর হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবং ভারতের আগরতলা’র সঙ্গে দ্রæত সময়ে যোগাযোগের জন্য ‘পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশীপ’ (পিপিপি)-এর আওতায় ‘ভুলতা আড়াইহাজার-বাঞ্ছারামপুর সড়কে (জ-২০৩) মেঘনা নদীর উপর সেতু নির্মাণ’ প্রকল্প; বিআইডবিøউটিএ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘৩৫টি ড্রেজার ও সহায়ক জলযানসহ আনুষাঙ্গিক সরঞ্জামাদি সংগ্রহ এবং প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের প্যাকেজ-০২ (লট-১ ও লট-২)-এর আওতায় বাংলাদেশ নৌ-বাহিনী পরিচালিত ‘ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস’-এর কাছ থেকে ১৭টি টাগবোট সংগ্রহের প্রস্তাবটি সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি অনুসরণ এবং নীলফামারী জেলার সাবেক ‘জুট ট্রেডিং কর্পোরেশন’ (জেটিসি) বর্তমান ‘বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশন’ (বিজেসি) (বিলুপ্ত)-এর মেসার্স হৃদকরণ নামীয় অঙ্গনের ০.০৯ একর সম্পত্তি ক্রেতা বরাবর রেজিস্ট্রি দলিল প্রদানের বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত