প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মোহন রায়হান: এমাজউদ্দীন স্যারের কাছে ন্যায্য কোনো দাবি-দাওয়া নিয়ে গেলে ফিরিয়ে দেননি কোনোদিন

মোহন রায়হান: খুব কষ্ট পেলাম। স্যার ভীষণ আদর করতেন। ন্যায্য কোনো দাবি-দাওয়া নিয়ে গেলে ফিরিয়ে দেননি কোনোদিন। এরশাদ আমলে কারাবন্দী আমার তিন দফা জামিন আবেদন না মঞ্জুর হলে তৎকালীন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি সর্বজন শ্রদ্ধেয় সামসুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে সমিতির একদল আইনজীবী রীতি ভঙ্গ করে সুপ্রিম কোর্ট থেকে জজ কোর্টে গিয়ে আমার জামিন আবেদন করলে কোর্ট এই শর্তে জামিন দিতে রাজি হয় যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে গ্যারান্টার হতে হবে। আমার স্ত্রী এমাজউদ্দীন স্যারের সঙ্গে দেখা করে স্যারকে সেটা জানালে স্যার তৎক্ষণাৎ আমার সরাসরি শিক্ষক বাংলা ডিপার্টমেন্টের হুমায়ুন আজাদ স্যারকে কোর্টে গিয়ে ভিসি স্যারের পক্ষে গ্যারান্টার হওয়ার অনুরোধ করেন। পরবর্তী কোর্টে হুমায়ুন আজাদ স্যার স্বতঃস্ফূর্তভাবে আমার স্ত্রীর সঙ্গে কোর্টে গিয়ে আমার জামিন নামায় স্বাক্ষর করে আমাকে মুক্ত করে নিয়ে আসেন। স্যারের সেই ঋণ কোনোদিন শোধ করা সম্ভব হবে না। অকৃতজ্ঞ আমি কতোদিন স্যারের কোনো খোঁজখবর নিইনি। অনেক দিন মনে করেছি স্যারকে দেখতে যাব, যাওয়া হয়নি। স্যার, যেখানেই থাকেন ক্ষমা করে দেবেন। স্যারের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত