প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে সিন্ডিকেটের কোন সুযোগ নেই: মেয়র তাপস

সুজিৎ নন্দী : [২] মেয়র তাপস বলেছেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে কোনো দুর্নীতি, অপচয়, অবহেলার সুযোগ নেই। যারা এসবের সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এভাবেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। চলমান থাকবে। কোনোভাবেই হয়রানি করতে দেওয়া হবে না, কোনো করও বাড়ানো হবে না।

[৩] তিনি বলেন, উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে নিবিড় তদারকি দরকার, নিবিড় পর্যবেক্ষণ দরকার। আমরা সেভাবেই কাজ করছি। ঢাকাবাসী যতদিন না আত্মবিশ্বাস জন্মাবে, এই সংস্থা সঠিকভাবে সেবা পৌঁছে দিচ্ছে, ততদিন এভাবে কাজ চলবে।

[৪] কেবল দুর্নীতিই নয়, অপচয়, অবহেলা, অনিয়ম ও গাফিলতি রন্ধে রন্ধে উল্লেখ করে বলেন, প্রশাসনিক সংস্কারে হাত দিয়েছি। প্রশাসনিক সংস্কার ছাড়া সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা সম্ভব নয়। সেবাগুলো ঢাকাবাসীর কাছে সঠিকভাবে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব নয়। একেকটি বিভাগ, একেকটি কাজ নতুন করে সাজাচ্ছি। এর সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনিক সংস্কারের কাজ চলমান থাকবে। আমরা পুরনো ঘানি টানতে চাই না। কিন্তু কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বলেছি ১৭ মে থেকে সামনের ৫ বছর, কোনোরকম কোনো দুর্নীতি, অবহেলা ও গাফিলতি বরদাশত করা হবে না।

[৫] জিরো টলারেন্স মানে শূন্যই উল্লেখ করে বলেন, প্রায় প্রতিদিনই কিছু না কিছু কার্যক্রম হাতে নেওয়া হচ্ছে। মহামারীর কারণে আমরা প্রতিকূলতার মধ্যে রয়েছি। সব বিভাগ যখন একাগ্রচিত্রে কাজ শুরু করতে পারবে, তখন ঢাকাবাসীকে আরও বেশি সেবা দিতে পারব।

[৬] ইশতেহারের পাঁচটি রূপরেখার আওতায় আমরা অগ্রাধিকার পাঁচটি খাত উল্লেখ করে মেয়র বলেন, প্রথমত স্বাস্থ্যসেবাকে অগ্রাধিকার দিচ্ছি। যেখানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকে ঢাকাবাসীকে রক্ষা করতে কী কী করণীয়, সে বিষয়ে আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। দ্বিতীয় অগ্রাধিকার মশকনিধনে। তৃতীয়ত, আমাদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। আমি নির্বাচনের সময় বলেছি। উন্নত শহরগুলোতে এভাবে কোথাও বর্জ্য ফেলে রাখতে দেখা যায় না। আমরা সেটার ব্যবস্থাপনা হাতে নিচ্ছি।

[৭] তিনি আরও বলেন, এরপরেই আমাদের রাস্তাঘাটের উন্নয়ন এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। উন্নত দেশের শহরগুলোর যে অবস্থা, সে রকম একটা পরিস্থিতিতে আমরা কীভাবে নিয়ে যেতে পারি, সেই বিষয়ে ভাবছি। এর মধ্যে জলাবদ্ধতা নিরসনের বিষয়টা আসবে এবং পঞ্চম হলো যানজট নিরসন।

[৮] মেয়র তাপস বলেন, দক্ষিণ সিটির যেসব সম্পত্তি বেদখল হয়ে আছে, অনেক হাটবাজার বেদখল রয়েছে, বিভিন্ন মার্কেটে অনিয়ম করে সঠিক রাজস্ব আহরণ করা যাচ্ছে না। রাজস্ব আদায়ের অনেক ক্ষেত্র দুর্নীতি, গাফিলতি ও অনিয়মের কারণে বঞ্চিত হচ্ছি। এটির সুযোগ দেওয়া হবে না। তবে সম্পাদনা: ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত