প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রাঙ্গামাটির সুবলং বাজারে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেলো ৪৭টি দোকান ও বসতঘর

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি: [২] রাঙ্গামাটির বরকল উপজেলার সুবলং বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেছে ৪৭টি দোকান ও বসতঘর। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২ কোটি টাকার মত জানিয়েছে স্থানীয়রা। রোববার(১৪জুন ২০২০) বিকেল পোনে ৪টার সময়ে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

[৩] সুবলং ফরেষ্টের কাচালং মূখ চেক ষ্টেশন সংলগ্ন একটি ঘরের রান্নার চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে জানিয়েছে রাঙ্গামাটি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স,পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র। মূহুতের্র মধ্যে আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক স্থানীয় সেনা ক্যাম্প সদস্য, পুলিশ ও স্থানীয়দের দীর্ঘ প্রচেষ্টায় কাপ্তাই হ্রদের পানি ছিটিয়ে পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ততক্ষণে ১টি কালি মন্দির, সরকারী ৪টি স্থাপনা, জব্দকৃত ৩টি কাঠের লট, বসত ঘর ও দোকান মিলে ৪৭টি স্থাপনা পুড়ে যায়। এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২কোটি টাকা বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

[৪] অপরদিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পাওয়ার সাথে সাথে রাঙ্গামাটি ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছানোর চেষ্টা করে। রাঙ্গামাটি ফায়ার সার্ভিস তাৎক্ষনিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানাতে পারেনি।

[৫] সুবলং ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মধু মিলন চাকমা জানান, বসত লাগোয় ৪৭টি দোকান সম্পূর্ণ ভাবে ও ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র, ১টি কালি মন্দিরের আংশিক পুড়ে গেছে।

[৬] অগ্নিকান্ড বিষয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা আব্দুস ছালেক প্রধান জানিয়েছেন, কাচালং মূখ চেক ষ্ট্যাশনের তিনটি ষ্টাফ কোয়াটার সম্পূর্ণ এবং জব্দকৃত ৩টি সেগুন কাঠের লট আংশিক পুড়ে গেছে। আগুনের কবল থেকে ষ্টাফদের আসবাবপত্র ও গৃহস্থালী কোন মালামাল উদ্ধার করতে পারেনি।

[৭] রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেন, অগ্নি দূর্গতদের জন্য সোমবার সকালে খাদ্যসহ নগদ টাকা ও স্থাপনা পুনঃনির্মাণের জন্য ঢেউটিন বিতরণ করা হবে। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়েই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বরকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সে মোতাবেক তালিকা করা হচ্ছে। সম্পাদনা: সারোয়ার জাহান

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত