প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গোপালগঞ্জে প্রতারক চক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার

আসাদুজ্জামান বাবুল : [২] গোপালগঞ্জ আন্তঃজেলা ব্যাটারী চালিত ভ্যান/ রিকশা ও ইজিবাইক চোর/প্রতারক চক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

[৩] এ সময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে চোরাইকৃত ২ টি ব্যাটারীচালিত ভ্যান ও ১ টি ইজিবাইক।

[৪]  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেছেন, গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার মুহম্মদ সাইদুর রহমানের দিকনির্দেশনায় সদর থানার এসআই মিজান, ডিবির এসআই মাসুম, কং ইকবাল, সোহাগ এবং সার্কেল অফিসের এএসআই রফিক, কং সিরাজ, শরীফ ও রাশেদকে সঙ্গেঁ নিয়ে বাগেরহাট, খুলনা ও গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ২ টি ব্যাটারীচালিত ভ্যান ও ১ টি ইজিবাইকসহ আন্তঃজেলা চোর/প্রতারক  সদস্য ১) শিপন গাজী (২১), পিতাঃ আলম গাজী, সাং যোগানিয়া, থানাঃ নড়াগাতি, জেলাঃ নড়াইল, ২) সোহেল রানা (২৫) পিতাঃ মোস্তফা ফকির, সাং ডুমুরিয়া, থানাঃ নড়াগাতি, জেলাঃ নড়াইল, ৩) নয়ন দাড়িয়া(১৯) পিতাঃ সাবু দাড়িয়া, সাং পহরডাঙ্গা, থানাঃ নড়াগাতি, জেলাঃ নড়াইল, ৪) লোকমান মোল্লা, পিং সামসুল মোল্লা, সাং হাতিয়ারা, কাশিয়ানি, গোপালগঞ্জ ৫) মাসুদ রানা, পিং রুবেল মোল্লা, সাং শেখপুরা, থানাঃ তেরখাদা, জেলাঃ খুলনা ৬) মিলন বিশ্বাস, পিতাঃ মোস্তাক বিশ্বাস, সাং আইজগাতি, থানাঃ রুপসা, জেলঃ খুলনা ও ৭) লেবু শেখ(৫৫), পিতাঃ মান্নান শেখ, সাং ঘোষের চর, থানা+জেলা গোপালগঞ্জদেরকে গ্রেফতার করা হয়। উল্লেখ্য, গত ৩০/০৫/২০২০ খ্রিঃ গোপালগঞ্জ সদর থানার বিজয়পাশা এলাকা হতে ব্যাটারীচালিত ভ্যান চালক বাচ্চু মোল্লা(২৮) পিতাঃ মোজাহার মোল্লা সাং বিজয়পাশা, থানা+জেলা গোপালগঞ্জকে ভাড়া করে গোপালগঞ্জ পুলিশ লাইন্সে আসার সময় কোমল পানীয় স্পীড এর সাথে চেতনানাশক /ঘুমের ঔষধ খাইয়ে অজ্ঞান করে তার ভ্যান চুরি করে নিয়ে যায়। পরে প্রযুক্তিগত সহায়তায় উক্ত চোর/প্রতারক চক্রের সকল( ৭) সদস্যকে খুলনা, নড়াইল ও গোপালগঞ্জের বিভিন্ন স্থান হতে চোরাই ব্যাটারীচালিত ভ্যান ও ইজিবাইকসহ গ্রেফতার করা হয়।

[৫] উক্ত চক্রের ২/৩ জন সদস্য যাত্রী সেজে প্রথমে ভ্যান ভাড়া করে। এরপর কিছুদুর যাওয়ার পর তারা কোন দোকান থেকে স্পীড/মজু ইত্যাদি ড্রিংকস(কোমল পানীয়) কিনে প্রথমে নিজেরা খায়। এরপর কৌশলে বোতলের অবশিষ্ঠ ড্রিংকসের(৩ ভাগের ১ ভাগ) সাথে তাদের সাথে থাকা চেতনানাশক/ ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে ভ্যানচালককে খাওয়ার অনুরোধ করে।

[৬] ভ্যানচালক যেহেতু দেখে যে তার যাত্রীরা উক্ত ড্রিংকস খেয়েছে তাই সন্দেহ না করে সেও তা খায়। কিছুদুর গিয়ে ভ্যানচালক অজ্ঞান হয়ে পড়লে চোর/প্রতারকরা ভ্যানচালককে ভ্যান হতে নামিয়ে /ফেলে দিয়ে ভ্যান নিয়ে পালিয়ে যায়।

[৭] উক্ত চক্র গোপালগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা হতে ২৮/৩০ টি ভ্যান/ ইজিবাইক চুরি করে বিক্রির কথা স্বীকার করে। উক্ত অবশিষ্ঠ চোরাই ভ্যান/ ইজিবাইক উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। কোন চালক, হোলপার ও সাধারন যাত্রীকে কোন অবস্থায়ই অন্য কারো কাছ থেকে কিছু না খাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহম্মদ ছানোয়ার হোসেন। সম্পাদনা:জেরিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত