প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আম্ফানের রেষ না কাটতেই কালবৈশাখী ঝড়ে মৃত্যু ৯ [২] ফসল বসতঘর ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

সমীরণ রায় : [৩] ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের পর রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে বয়ে গেছে কালবৈশাখী ঝড়। গত মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার ভোরে প্রবল গতিতে এই ঝড় আঘাত হানে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে বাতাসের চাপ বেশি থাকায় এই কালবৈশাখী ঝড় হয়ছে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। এ ঝড়ে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় গাছপালা উপড়ে পড়েছে। ফলে বসতঘর, ফসল, মুরগী খামার, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বিদ্যুতের খুটির ক্ষতি হয়েছে। এতে অন্তত দেশের বিভিন্ন এলাকায় ৯জন মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

[৪] ঈদের দিন অর্থাৎ ২৫ মে থেকে গত তিন দিন ধরেই চার সমুদ্র বন্দরে দেখাতে বলা হচ্ছে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত। একইসঙ্গে উপকূলীয় এলাকা স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে দুই থেকে চার ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলেও আশঙ্কা করে আবহাওয়া অধিদফতর। পরে
মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে হঠাৎ শুরু হয় ঝড়। এরপর টানা প্রায় আধা ঘণ্টা তুমুল বেগে ঝড়ো বাতাস ও বজ্রসহ মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়।

এরপর বুধবার ভোর সোয়া ৬টার দিকে ফের আঘাত হানে কালবৈশাখী। মধ্যরাতের তুলনায় ভোরে বাতাসের গতিবেগ বেশি ছিল। আধা ঘণ্টার মতো চলে তাণ্ডব।

[৫] জয়পুরহাটের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া আকস্মিক ঝড়ে দেয়াল চাপা পড়ে মা ও দুই শিশুসহ ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই ঝড়ে সদর, ক্ষেতলাল ও কালাই উপজেলার অন্তত ৪০টি গ্রাম লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে।

[৬] আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং বরিশাল ও খুলনা বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে।

[৭] সতর্ক বার্তায় আরও বলা হয়, বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্যে ও অমাবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চলে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে দুই থেকে তিন ফুট অধিক উচ্চতায় বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলে আবহাওয়া অফিস।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত