প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রমজান মাস সামনে রেখে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন

ইসমাঈল আযহার: [২] আগামী ২৫ এপ্রিল শুরু হচ্ছে পবিত্র রমজান। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এ বছর রমজান মাসে জামাত করে নামাজ না পড়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখর আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থা। নিউজ১৮, দ্য পয়েন্ট

[৩] হু বলেছে, পবিত্র এই মাসে অনেক মুসলমান মসজিদে যাওয়া বাড়িয়ে দেন। একসঙ্গে প্রার্থনা করেন অনেক মানুষ। বিশেষ করে মাসটির শেষ দশ দিনে মসজিদে মুসল্লিদের উপস্থিতি উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে যায়। কিন্তু এ বছর এটা করলে চলবে না। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বজায় রাখতে হবে দূরত্ব।

[৪] বিশ্বের প্রতিটি দেশের প্রতি হু এর আবেদন, রমজান মাসে কী করা যাবে, আর কী করা যাবে না—তা পরিষ্কার ভাবে সবাইকে জানানো হোক। এ ব্যাপারে জাতীয় নীতি গ্রহণ করতে হবে৷

[৫] বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ মেনে মুসলমান সম্প্রদায়ের অনেক ধর্মীয় নেতা রমজান মাসে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন৷

[৬] হু-র পরামর্শ, জমায়েত এড়িয়ে চলুন। নিজেরাও কোনও জমায়েত ডাকবেন না। সামাজিক বা ধর্মীয়, কোনও ধরণের জমায়েত করা বাঞ্ছনীয় নয়। তার বদলে সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে ভার্চুয়াল জমায়েত হোক। কথা চলুক ফোনে, দেখা হোক ভিডিও কলে। ধর্মীয় জমায়েত হোক টেলিভিশনের সামনে নিজের নিজের বাড়িতে, অথবা রেডিওতে ধর্মীয় বক্তব্য শুনে শেষ হোক এবারের রমজান। কারোর বাড়ি ইফতারে যাবেন না, কাউকে নিজের বাড়ি আসতেও দেবেন না। হাত মেলানো বা কোলাকুলি নয়, তার বদলে চলুক নমস্কার ও বুকে হাত রেখে সৌজন্য প্রকাশ। হাত নেড়ে অভিবাদন জানান। মসজিদে নয়, প্রার্থনা সারুন নিজের বাড়িতেই। এতেই নিজের ও প্রিয়জনের ভবিষ্যত সুরক্ষিত করতে পারবেন। জাকাত বা দান করার সময় সোশ্যাল ডিসট্যান্স বজায় রাখুন। ইফতার পার্টি না ডেকে, খাবারের প্যাকেটের ব্যবস্থা হোক, এতে সংক্রমণের আশঙ্কা ততটা নেই। কোনও সমস্যা হলেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কলকাতা নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত