প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সেনাবাহিনী ও পুলিশ কঠোর অবস্থানে, রাজধানীর রাস্তায় লোকজন কম, পাল্টায়নি দেশের বিভিন্ন এলাকার চিত্র

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : [২] সেনাবাহিনীর সদস্যরা বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় ঘুরে মাইকিং করে জনসাধারণকে সচেতন করছেন। জিপ, পিকআপ গাড়ি ও পায়ে হেঁটে সেনাবাহিনীর দল ‘সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার’ আহ্বান জানানো পাশাপাশি ‘জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হতে নিষেধ’ করছেন। পাশাপাশি মোড়ে মোড়ে রয়েছে পুলিশের চেকপোষ্ট।

[৩] গত কয়েকদিন স্থানীয় প্রশাসনকে সেনাবাহিনী একইভাবে সহায়তা করলেও আজ থেকে তা আরো জোরদার হয়েছে। অন্যান্য দিনের চেয়ে রাজধানীর রাস্তায় লোকজনের উপস্থিতি ও যানবাহন কম দেখা যাচ্ছে।

[৪] সকালে মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরে গণপরিবহনের জন্য অপেক্ষমান কয়েকজনের সামনে একটি জিপ এসে দাঁড়াতে দেখা গেলো। জিপ থেকে নেমে সেনাসদস্যরা অপেক্ষমান ব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে বলতে থাকেন, ‘আপনারা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন’। একই আহ্বান জানিয়ে কয়েকটি এলাকায় মাইকিং করতে দেখা গেছে। দুপুরে প্রগতি সরনিতে সেনাবাহীনির দল মাইকিং করছিলেন। এসময় কয়েকজন পথচারীকে রাস্তায় বের হওয়ার কারণও জানতে চান তারা। এরপর সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে চলে যেতে বলেন।

[৫] একইভাবে পুলিশকেও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার, মুখে মাস্ক পরিধানের আহŸান জানাতে দেখা যায়। এসব প্রচারকালে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় রাস্তায় অযথা ঘোরাফেরা না করার জন্য। জরুরি কাজ না থাকলে সবাইকে বাসায় যাবার অনুরোধ করা হয়। একইভাবে পথে পথে চেকপোস্ট বসিয়ে ঘর থেকে বের হওয়া ও গন্তব্যের কারণ জানতে চাওয়া হচ্ছে।

[৬] এদিকে বুধবার রাতে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি নিশ্চিতে আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী। স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তার অংশ হিসেবে সরকারি নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

[৭] চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, বরিশাল, লালমনিরহাটসহ কয়েকেটি জেলা ও বিভাগীয় শহর এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অন্যদিনের মতই মানুষ চলাফেলা করছে। কেউই সামাজিক দুরত্ব মানছেনা। বাজারেও রয়েছে মানুষের ভীড়।

[৮] সেনাবাহিনী ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, আজ তারা কঠোর হবেন বলে ঘোষণা দেয়া হলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা মানুষকে অনুরোধ জানাচ্ছেন বাসায় থাকার জন্য। এরপরও জরুরী কাজের অযুহাতে কেউ রাস্তায় বের হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সেনাবাহিনী ও পুলিশ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত