প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ড. ব্রুস আইলওয়াডের নেতৃত্বেই চলে চীনকে করোনাভাইরাস থেকে উদ্ধারের অসাধারণ লড়াই

সওগাত আলী সাগর : তিনি ঘুমুতে গিয়েছিলেন রাত তিনটায়। ভোর সাতটায় বিছানা ছেড়েই ফোন করলেন ইরাকে, সেখানকার পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজখবর নিলেন। চীনের ফলো আপ, ফোন করতে হলো ইতালিতে, সেখানকার অবস্থা খুবই নাজুক। টিমের মেম্বার, অ্যাডভাইজার, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা। এর মাঝেই বিশ্বের বিভিন্নস্থান থেকে মিডিয়ার ফোন। সেগুলোও অ্যাটেন্ড করতে হয়। একজন মানুষের দিনলিপি হিসেবে তালিকাটা কেমন লাগছে? ১০ মার্চ সকালে কানাডার সিবিসির জনপ্রিয় অনুষ্ঠান দ্য এসটি. জোনস মর্নি শো-এ জেনেভা থেকে যুক্ত হওয়ার আগেই তাকে এতোগুলো কাজ সারতে হয়েছে। শোতে যুক্ত হওয়ার আগে তিনি জানিয়ে রাখলেন ১৫ মিনিটের মধ্যে তাকে আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ সভায় যোগ দিতে যেতে হবে।

এটি কেবল ১০ মার্চের চিত্র নয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পর থেকেই তার জীবন হয়ে গেছে এমন, তাকে দৌড়াতে হয় ঘড়ির কাঁটার আগে আগে। এই ভদ্রলোকের নাম ড. ব্রুস আইলওয়ার্ড। চীনে করোনা নামের নতুন ভাইরাসটি যখন আগ্রাসী হয়ে উঠে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা শরণাপন্ন হয় কানাডিয়ান এই চিকিৎসকের। তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয় চীন এবং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার যৌথ টিমের নেতা হিসেবে। তার নেতৃত্বেই চলে চীনকে করোনা থেকে উদ্ধারের অসাধারণ লড়াই। সেই লড়াইয়ে ব্রুসের দল জয়ী। ব্রুসকেই কেন খুঁজলো বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা? কারণ তার অভিজ্ঞতা। পোলিও, ইবোলা, জাইকা, সার্সÑ গত ৩০ বছরে যে ক’টি নতুন ভাইরাস আক্রমণ করেছে মানবজাতিকে, প্রতিটি ভাইরাসের বিরুদ্ধেই লড়েছেন এই চিকিৎসক। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা যখনি বুঝতে পারলো করোনা স্বাভাবিক কোনো ভাইরাস নয়Ñ তখনি ডাক পড়লো ব্রুস আইল্ওয়ার্ডের। আর তিনিও ঘড়ির কাঁটার দিকে না তাকিয়ে দিনে-রাতে লড়াই করছেন নতুন এক ভাইরাসের হাত থেকে মানব সভ্যতাকে বাঁচানোর জন্য। প্রাউড অব ইউ কানাডিয়ান ডক্টর। তোমাকে স্যালুট, ব্রুস। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত