প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

১০টি অপ্রয়োজনীয় বিষয় থেকে দূরে থাকুন

আহসান হাবিব : ইমাম ইবনুল কাইউম (র.) ছিলেন ইসলামের একজন মহান সংস্কারক। তিনি ইসলামের ফিকহী ও উসুলের ওপর অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করেছেন। সব মিলিয়ে ইমাম ইবনুল কাইউম (র.) ৩০টিরও বেশি বই রচনা করে যান, যা আজও বিশ্বজুড়ে সমাদৃত এবং পঠিত। এর মধ্যে একটি আলোচিত ও প্রশংসিত বই হলো আল ফাওয়াইদ। এই গ্রন্থের ১৬১-১৬২ পৃষ্ঠায় ইমাম ইবনুল কাইউম (র.) বলেন, “১০টি অপ্রয়োজনীয় বিষয় আছে, যার থেকে উপকার বা কল্যাণ পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এগুলো হলো:

১. সেই জ্ঞান যার কোনো বাস্তবায়ন নেই।
২. সেই সব কাজ যার ভিতর কোনো একাগ্রতা, একনিষ্ঠতা নেই। যে কাজটি কোনো সঠিক দৃষ্টান্তের ভিত্তিতে করা হয়নি।
৩. সেই সম্পদ যা জমা বা মজুদ করে রাখা হয়। সম্পদের মালিক দুনিয়াতেও এই সম্পদ ভোগ করতে পারে না আর পরকালীন জীবনেও এই সম্পদের কোনো ফায়দা সে হাসিল করতে পারে না।
৪. সেই অন্তর যার ভিতর আল্লাহর প্রতি কোনো ভালোবাসা নেই। আল্লাহর সন্তষ্টি ও সান্নিধ্য পাওয়ার কোনো বাসনাও যে অন্তরে নেই।
৫. সেই শরীর যা আল্লাহর আনুগত্য করে না।
৬. আল্লাহকে এমনভাবে ভালোবাসা যার নেপথ্যে আল্লাহ’র সন্তষ্টি পাওয়ার কোনো আকাক্সক্ষা থাকে না।
৭. এমন সময় যা চলে যায় অথচ সেই সময়কে কাজে লাগিয়ে গুনাহ কমিয়ে ও নেক আমল বৃদ্ধি করে আল্লাহর নিকটবর্তী হওয়ার কোনো চেষ্টা চালানো হয় না।
৮. সেই মন বা অন্তর যা এমন সব বিষয় নিয়ে ব্যস্ত হয়ে থাকে যা থেকে কোনো কল্যাণ বা উপকারিতা পাওয়া যায় না।
৯. এমন সব মানুষের সেবা করা বা এমন ব্যক্তিদের সংস্পর্শে থাকা যারা আল্লাহর নিকটবর্তীও হতে দেয় না আবার যাদের কাছ থেকে অন্য কোনো কল্যাণও পাওয়া যায় না।
১০. কোনো মানুষকে অহেতুক ভয় পাওয়া, যার নিজস্ব কোনো নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা নেই। যে নিজের কোনো উপকার করতে পারে না, আবার ক্ষতিও করতে পারে না। যে তার মৃত্যু ঠেকাতে পারে না, আবার কাউকেও জীবন দিতে পারে না। অথচ আল্লাহর তুলনায় এই অক্ষম মানুষটিকে বেশি ভয় পাওয়ার মাঝে অকল্যাণ ছাড়া আর কিছুই নেই।

তবে সবচেয়ে খারাপ পরিণতি হয় তখনি হয় যখন মানুষের অন্তর কলুষিত হয় এবং মানুষ প্রচুর সময়ের অপচয় করে। অন্তর তখনি কলুষিত হয় যখন মানুষ পরকালের চেয়ে দুনিয়ার জীবনকে অগ্রাধিকার দেয়। আর সময়ের অপচয় হয় যখন মানুষ একটার পর একটা আশা করতেই থাকে। মানুষের নিরন্তর চাওয়া আর কামনার ভেতরেই যাবতীয় অনিষ্টের জন্ম হয়। অন্যদিকে, সত্য ও সঠিক পথ অনুসরণ করলেই মানুষের প্রকৃত কল্যাণ সাধিত হয়। মানুষ তখন আল্লাহ’র সাথে সাক্ষাত করার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত