প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাঁশখালীর খানখানাবাদের জালালসহ ৩জন এখনও ফিরেনি

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ  কক্সবাজারের কুতুরদিয়া শাহ: আবদুল মালেক দরবার শরীফের ওরশে যাওয়ার সময় বাঁশখালীর জলকদর খালের কাথরিয়া চুনতি বাজারের পাশে এবং খানখানাবাদের কদমরসুল থেকে যাওয়া গন্ডামারা সাগর উপকুলে বোট দুটি উল্টে গিয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে বুধবার। এ ঘটনায় কাথরিয়া বাগমারার মৃত রওশানজ্জামান এর পুত্র ওমান প্রবাসী মোহাম্মদ আক্কাস (২৮), আমান উল্লাহর ছেলে স্কুল ছাত্র মোহাম্মদ মিনহাজ (৯) ও খানখানাবাদের রায়ছটা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ ইদ্রিসের ছেলে আবদুল মালেক (৫২) এ তিনজনের লাশ পাওয়া যায় গত বুধবার। সে সময়ে সবার জানামতে আরো একজন নিখোঁজ ছিলেন সে হল খানখানাবাদের কদমরসুল এলাকার মৃত আহমদ হোসেন ও আমানে খাতুনের পুত্র জালাল উদ্দিন (৫৩)। ঘটনার একদিন পেরিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত তার লাশ পাওয়া যায়নি। পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থল গন্ডামারা ,কুতুবদিয়া চ্যানেল, মহেষখালী সহ সম্ভাব্য সহ স্থানে খোঁজ নিয়েছে কিন্ত সন্ধান কিংবা লাশ না পাওয়ায় পরিবারের সদস্যরা অনেকটা ভেঙ্গে পড়েছে। একই ঘটনায় বুধবার রাতে আরো দুইজনকে পাওয়া যাচ্ছে না বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে। তারা হলেন খানখানাবাদের ডোংরা এলাকার মোহাম্মদ হাছানের পুত্র স্কুল ছাত্র আরমান উদ্দিন (১৪) ও একই এলাকার মৃত ছৈয়দ আহমদের পুত্র মো: লেদু মিয়া (৬৫)। তার ১ ছেলে ৪ মেয়ে রয়েছে। একমাত্র ছেলে মো: জয়নাল আবেদীন ওমানে প্রবাসী বলে জানান তাদের আত্মীয় মোরশেদুল আলম। সে আরো জানায় তারা সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজ করছে এখন ও অভ্যাহত রয়েছে ।

খানখানাবাদের চেয়ারম্যান মো: বদরুদ্দিন চৌধুরী বলেন বোট ডুবির ফলে অনেকে মোবাইল হারিয়ে ফেলে তাই যোগাযোগ বিছিন্ন রয়েছে। অনেক লোক আজকে (বৃহস্পতিবার)ও আসছে। তাই যারা আসেনি তাদের নিখোঁজ হিসাবে ধরে নিয়ে আমরা সকল স্থানে খবর নিচ্ছি তাদের পেতে ।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম মজুমদার বলেন পৃথক দুঘর্টনায় ৩ জন নিহতের লাশ একজন নিঁেখাজ রয়েছে সে ব্যাপারে অবগত। আরো দুইজন নিখোঁজ রয়েছে তাদের পরিবার কিংবা কেউ আমাদের অবহিত করেনি ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত