প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এদেশের সাবালকদের কাজকর্ম এবং নাবালকদের ধর্ষণ শেষে উল্লাস প্রসঙ্গ

 

মইনুল আহসান সাবের : চার কিশোর-তরুণ ধর্ষণের পর ফেসবুকে যে ‘মজা’ করেছে, তা নিয়ে অনেককেই খুব বিচলিত দেখলাম। তাদের সবারই প্রশ্ন, এ কোথায় চলেছি আমরা।

আচ্ছা ওই চারজন কী খুবই বেমানান কিছু করে ফেলেছে? মনে রাখি আমরা যে দেশ ও সময়ে আছি, সেখানে উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা মুক্তিযুদ্ধ না করেও চাকরির মেয়াদ বাড়ানো ও অন্যান্য সুবিধা প্রাপ্তির জন্য ভুয়া সনদ বানিয়ে নেন, হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়ে যায়, সরাসরি ব্যাংকগুলো খেলাপিদের খেলায় নিঃস্ব হতে বসে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা অন্ধ দলবাজ হন, চুরি করেন, রাজনৈতিক প্রচারে অংশ নেন, রাজনীতিবিদরা অনর্গল মিথ্যা, অবান্তর ও অবাস্তব কথা বলেন, সংসদ সদস্য সংসদে দাঁড়িয়ে বিচারবহির্ভূত হত্যাকা-ের পক্ষে বলেন, বুদ্ধিজীবীরা কবরখানার নিস্তব্ধতা ভালোবাসেন, লেখকরা পুরস্কার পদক ও খ্যাতির বাইরে কিছু ভাবেন না, সাংবাদিকরা গাড়ি, বাড়ি ও অর্থের জন্য যত্রতত্র পা চাটেন, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে কর্মকর্তাদের অপ্রয়োজনীয় বিদেশ সফরের জন্য বিশাল বাজেট বরাদ্দ থাকে, বিভিন্ন প্রজেক্টে কেনাকাটা হয় একশগুণ বেশি দামে, ডাক্তাররা ৩০ সেকেন্ডে রোগী দেখেন, তাদের কারও কারও যোগসাজশে বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত মানুষকেও আইসিইউতে রেখে দেয়, পাঠ্যপুস্তক ধর্মীয় গোষ্ঠীর চাপে তার যথাযথ চেহারা হারায়। তো এ দেশে সাবালকদের যখন এই অবস্থা, তখন নাবালকরা ধর্ষণ শেষে উল্লাস করবে, না কোন দেশে করবে। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত