প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সকালের চায়ের সঙ্গে এক চিমটি হলুদ মেশান আর থাকুন রোগ মুক্ত!

মুসবা তিন্নি : রান্নায় হলুদের ব্যবহার আদিকাল থেকেই চলে আসছে। খাবারের রঙ পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে স্বাদও বাড়িয়ে তোলে হলুদ। শুধু রান্নাতেই নয়, দৈহিক নানান রোগ থেকে মুহূর্তেই মুক্তি দিতে সক্ষম হলুদ। স্বাস্থ্য বার্তা

অন্যদিকে চা প্রিয় প্রায় সব মানুষই। বিভিন্ন রকমের চা আমরা পান করে থাকি। এর মধ্যে মধু চা, লেবু চা, দুধ চা, পাতা চা ইত্যাদি আরো কত রকমের চা! কিন্তু কখনো হলুদ চা খেয়েছেন কি? অনেক উপকারী এই হলুদ চা দেহের মারাত্মক সব রোগ সারাতে বেশ কার্যকরী। তাই সকালের চায়ের সঙ্গে এক চিমটি হলুদ মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

হলুদ চা তৈরির পদ্ধতি : প্রথমে চুলায় একটি পাত্র বসিয়ে তাতে ১ কাপের একটু বেশি পরিমাণ পানি দিন। পানি গরম হয়ে গেলে তাতে এক চিমটি হলুদ মেশান। এরপর পানি ফোটাতে থাকুন। প্রায় ১০ মিনিটের মতো ফোটান। তারপর পানি ছেঁকে নিন। এবার ছেঁকে নেয়া পানিতে গোলমরিচ, লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে নিন। ব্যস তৈরি হয়ে গেলো হলুদ চা।

হলুদ মেশানো চা পান করলে যা হয় :

১. হলুদ দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। হলুদ চায়ে একটি উপকারী উপাদান আছে, যা চোখের রেটিনাকে রক্ষা করে। ফলে দৃষ্টিশক্তি হারানোর ভয় থাকে না।

২. হলুদে উপস্থিত কারকিউমিন রক্তে জমতে থাকা কোলেস্টেরলের মাত্রাকে কমিয়ে দেয়। ফলে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়।

৩. নিয়মিত হলুদ চা পান করলে ত্বক দীর্ঘদিন তার উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে সক্ষম হয়।

৪. হলুদ ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। হলুদের ভেতরে থাকা অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি প্রপার্টিজ ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীরে ক্যানসার কোষ জন্মাতে দেয় না।

৫. এছাড়া, হলুদ চা হজম ক্ষমতা বাড়ায়, স্মৃতিশক্তির বিকাশ ঘটায়, ওজন নিয়ন্ত্রণ করে, মাথার খুশকি সমস্যা দূর করে, আর্থারাইটিসের ব্যথা কমায়।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত