প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহবুবুর রহমানের বক্তব্য সম্পর্কে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান প্রেরিত বক্তব্য

লিয়ন মীর : গত ৮-৯-২০১৯ তারিখে দৈনিক আমাদের নতুন সময় পত্রিকায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সেনা প্রধান লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমানের সাক্ষাৎকারভিত্তিক একটি প্রতিবেদন ছাপা হয়েছিলো। মাহবুবুর রহমান বলেছিলেন, তারেক রহমান যেভাবে জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের পিতা ঘোষণা করছেন এটা আমি মোটেই ভালোভাবে দেখছি না। বাপ বলেই জিয়াউর রহমানকে জাতির পিতার আসনে বসানো সঠিক নয়। জাতির পিতা যদি বলতে হয় শেখ মুজিবুর রহমানকেই বলতে হবে। শেখ মুজিবুর রহমান যখন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছেন তখন জিয়াউর রহমান অনেক ছোট ছিলেন। সত্যকে সত্য বলে মানতে হবে। তবে মুক্তিযুদ্ধ এবং বাংলাদেশ বিনির্মাণে জিয়াউর রহমানের অবদান রয়েছে।

এই প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান আমাদের নতুন সময় পত্রিকায় এক চিঠির মাধ্যমে নিম্ন লিখিত বক্তব্যটি পাঠিয়েছেন। বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য লে. জে. (অব) মাহবুবুর রহমান অসুস্থ ও শয্যাশায়ী অবস্থায় আমাকে তার নিম্নোক্ত বক্তব্য দৈনিক আমাদের নতুন সময় গত (৭-৯-২০১৯) তারিখে তার বক্তব্য বলে প্রকাশিত একটি খবর সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানোর নির্দেশ দিয়েছেন।
‘‘আমি দীর্ঘদিন ধরে দারুণ অসুস্থ অবস্থায় শয্যাশায়ী রয়েছি। দলের দৈনন্দিন কার্যক্রম এমনকি দলের স্থায়ী কমিটির সভাতেও উপস্থিত থাকতে পারি না। নিয়মিত পত্র-পত্রিকাও পড়া হয় না। গত (৭-৯-২০১৯) তারিখে আমাদের নতুন সময় পত্রিকা থেকে ফোনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের একটি বক্তব্যের বিষয়ে মন্তব্য করার অনুরোধ জানানো হলে আমি ওই বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের বক্তব্য পড়িনি কিংবা জানি না বলে জানাই।

ফোনে সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকের সঙ্গে আমার স্বাস্থ্যগত অবস্থা ও দেশের রাজনীতি নিয়ে কিছু কথা হয়। কিন্তু ৮-৯-২০১৯ তারিখের পত্রিকায় আমার জবানিতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সম্পর্কে যেসব কথা ছাপা হয়েছে তেমন কোনো আলোচনা হয়েছে বলে আমার মনে পড়ে না। উনার যে বক্তব্য আমি পড়িনি কিংবা শুনিনি সে সম্পর্কে আমার কোনো মন্তব্য করা স্বাভাবিক বা যুক্তিযুক্ত নয়।

আমি অসুস্থ অবস্থায় আমাকে নিয়ে এমন খবর ছাপিয়ে আমাকে বিব্রত ও মানসিক অশান্তির শিকার করা হয়েছে। পত্রিকা কর্তৃপক্ষ এসব বাস্তবতা অনুযায়ী আমার বক্তব্য প্রকাশ করে আমাকে এ অবস্থা থেকে মুক্তি দেবেন বলে আশা করি।’’

প্রতিবেদকের বক্তব্য : শায়রুল কবির খান প্রেরিত চিঠির বিষয়ে মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি আজ (গতকাল) সারাদিন ফোন ধরেননি। কিন্তু প্রতিবেদনে মাহবুবুর রহমানের যে বক্তব্য ছাপা হয়েছে সেই বক্তব্যের রেকর্ড আমাদের নতুন সময়ের কাছে সংরক্ষিত আছে। আমাদের প্রতিবেদনের বিষয়ে অবিচল আছি।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত