প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রুশ এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয় ইস্যুতে পম্পেওকে জয়শঙ্কর বললেন, জাতীয় স্বার্থই সবার আগে

লিহান লিমা: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথমবারের মতো বুধবার দিল্লি সফরে এলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, এই সফরে ইরানের থেকে তেল ক্রয় ও রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয় চুক্তি বাতিল চাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ভারত স্পষ্ট জানিয়েছে, জাতীয় স্বার্থ রক্ষার্থে যা প্রয়োজন তাই করবে দিল্লি। দ্য হিন্দু, হিন্দুস্তান টাইমস, এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বুধবারের এই সফরে মোদী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠক করেন পম্পেও। দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বার্তা দিয়েছেন মোদী। জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠকে পম্পেও দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সব ইস্যুতে খোলামেলা আলোচনা করেন। দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় প্রাধান্য পায় দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য, ইরান সংকট, রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি, ইন্দো প্রশান্ত আঞ্চল, সীমান্ত সন্ত্রাসবাদের মতো ইস্যুগুলো। বৈঠকে চীনের বেল্ট এন্ড রোড প্রকল্পের সমালোচনা করে পম্পেও বলেন, ‘যে দেশগুলো এর সঙ্গে জড়িত তারা সংযুক্ত হওয়ার বদলে শেকলে আবদ্ধ হবে।’ ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্যের ওপর মার্কিন শুল্কারোপের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র বৃহত্তর বাজারে প্রবেশের অধিকার রাখে।’

আলোচনা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পম্পেও বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু ভারত এবং এই দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় যাচ্ছে। যে কোন ইস্যুতে দুই দেশ একসঙ্গে কাজ করবে।’ তবে এক্ষেত্রে কৌশলের আশ্রয় নেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। জয়শঙ্কর বলেন, ‘নানা পার্থক্য ও মতাদর্শ থাকা সত্তে¡ও আমরা সেরা বন্ধু। আমরা আশা করছি সমঝোতার ক্ষেত্রে দুই দেশ দায়িত্বশীল সম্পর্কের পরিচয় দেবে।’

এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাপনা ক্রয় করলে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি অনুযায়ী ভারত নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হবে কি না গণমাধ্যমকর্মীদের এই প্রশ্নে সংবাদ সম্মেলনে জয়শঙ্কর বলেন, ‘আমাদের নানা দেশের সঙ্গে নানা ধরণের সম্পর্ক রয়েছে। আমাদের জাতীয় স্বার্থ রক্ষার জন্য যা প্রয়োজন আমরা তাই করব।’ ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘প্রতিরক্ষা সহযোগিতা নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। এটিকে এগিয়ে নিতে হলে দুই দেশের মধ্যে আস্থা ও বিশ্বাস থাকা প্রয়োজন।’

গত মাসে মোদি ক্ষমতায় আসার পর পম্পেওর এই বৈঠক দুই দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ের বৈঠক। আগামী সপ্তাহে জাপানের ওসাকায় অনুষ্ঠেয় জি-২০ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত