প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্যারিয়ার গঠনে বাংলালিংক ইনোভেটর্স দ্বিতীয় পর্ব শুরু

ফাহিম ফয়সাল : দেশের উদ্ভাবনী ক্ষমতাসম্পন্ন প্রতিভাবান তরুণদের ক্যারিয়ার গঠনে সহযোগিতা প্রদান ও তাদের সৃষ্টিশীল পরিকল্পনাকে উৎসাহিত করতে কাজ করছে ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক। তারই ধারাবাহিকতায় শুরু হয়েছে প্রযুক্তি ভিত্তিক ব্যবসায়িক পরিকল্পনার প্রতিযোগিতা ‘বাংলালিংক ইনোভেটর্স’-এর দ্বিতীয় পর্ব।

মঙ্গলবার বাংলালিংক-এর প্রধান কার্যালয় ‘টাইগারর্স ডেন’-এ অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই প্রতিযোগিতার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রতিভাবান প্রতিযোগীদের বাছাই করে গ্রুমিং, বুট ক্যাম্প সেশন, ওয়ার্কশপ ও অন্যান্য আরও কার্যক্রমের মাধ্যমে তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে ‘বাংলালিংক ইনোভেটর্স’। সুনিয়ন্ত্রিত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নির্বাচিত বিজয়ী দল পাবে অ্যামেস্টারডমে অবস্থিত বাংলালিংক-এর স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান ভিওনের প্রধান কার্যালয় পরিদর্শন ও বাংলালিংক-এর ‘স্ট্র্যাটেজিক অ্যাসিস্টেন্ট প্রোগ্রাম’ এর অ্যাসেসমেন্ট সেন্টারে যোগদানের সুযোগ। সেরা ৩টি দল পাবে বাংলালিংক-এর ‘স্ট্র্যাটেজিক অ্যাসিস্টেন্ট প্রোগ্রাম’-এর অ্যাসেসমেন্ট সেন্টারে যোগদানের সুযোগসহ আকর্ষণীয় পুরস্কার। এছাড়া সেরা ৫ দলের প্রত্যেক সদস্য বাংলালিংক-এর অ্যাডভান্সড ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম (এআইপি)-এ সরাসরি যোগদান করতে পারবে।

আরও জানানো হয়, প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য আগ্রহীদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে: https://ennovators.banglalink.net| বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীরা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। রেজিস্ট্রেশনের সময় ১৭ জুলাই, ২০১৮ থেকে ২৫ আগস্ট, ২০১৮ পর্যন্ত। দেশের ৩০টিরও বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে রোড শো ও ক্যাম্পাস ব্র্যান্ডিং আয়োজনের মাধ্যমে প্রতিযোগিতাটি সম্পর্কে তরুণদের অবগত করা হবে।

বাংলালিংক’র চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস এ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফিসার মনজুলা মোরশেদ বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, দেশের মেধাবী তরুণদের ডিজিটাল যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা ও অভিনবভাবে বাস্তব জীবনের নানা ধরনের সমস্যার সমাধান করার প্রয়োজনীয় সামর্থ্য রয়েছে। দেশের একটি অন্যতম প্রধান ডিজিটাল প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলালিংক প্রতিনিয়ত বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম সৃষ্টির মাধ্যমে মেধাবী তরুণদের দক্ষতা প্রদর্শনের সুযোগ দিয়ে যাচ্ছে। বাংলালিংক ইনোভেটর্স মেধাবী তরুণদের মনে পরিকল্পনা, অভিনবত্ব ও সৃষ্টিশীলতার বীজ বপন করবে। বাংলালিংক-এ আমরা এমন একটি সহযোগিতামূলক কর্ম-সংস্কৃতি তৈরি করেছি যা বর্তমান প্রজন্মকে এর সাথে নিযুক্ত হয়ে তাদের সম্ভাবনাকে বিকশিত করতে উদ্বুদ্ধ করবে।’

চিফ কর্পোরেট এ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন, বাংলালিংক’র মতো একটি ডিজিটাল প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটালাইজেশনের ক্রমবিকাশের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে প্রতিটি পর্যায়ে উদ্ভাবনের প্রয়োগ ঘটাতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে উদ্ভাবনকে কাজে লাগানোর জন্য আমরা যে উদ্যোগ নিয়েছি, তাতে মেধাবী তরুণদের অভিনব চিন্তাধারা নতুন মাত্রা যোগ করবে বলে আমরা আশা করি। ভবিষ্যতেও আমরা তরুণদের মেধাকে যথাযথভাবে মূল্যায়িত করে তাদেরকে বাংলালিংক’র যাত্রার অংশীদার করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে চাই। আমাদের এই উদ্যোগ দেশের ডিজিটাল পরিকাঠামোর উন্নয়নে অবদান রেখে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, বাংলালিংক ইনোভেটর্স-এর প্রথম পর্ব ২০১৭ সালে সাফল্যের সাথে অনুষ্ঠিত হয়। আগামীতে বিশেষ এই উদ্যোগের সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বাংলালিংক ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বাংলালিংকের চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফিসার মনজুলা মোরশেদ, চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান এবং প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত