প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আগামী অর্থ বছরে শুরু হচ্ছে দেশের প্রথম কৃষি যন্ত্রপাতি টেস্টিং ল্যাবের কার্যক্রম

মতিনুজ্জামান মিটু : আগামী অর্থ বছরে শুরু হচ্ছে দেশের প্রথম কৃষি যন্ত্রপাতি টেস্টিং ল্যাবের কার্যক্রম। গাজীপুর-চন্দ্রা সড়কের পাশে নূরবাগ হর্টিকালচার সেন্টারে কৃষিসম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নিজস্ব দেড় একর জমিতে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ল্যাবটি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ‘খামার যান্ত্রিকীকরণের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প-২য় পর্যায়’ এর আওতায় প্রতিষ্ঠিত হয় দেশের অতি প্রয়োজনীয় এই ল্যাব। ল্যাবটির কার্যক্রম শুরু হলে কৃষি যন্ত্রের গুনগত মান ও দক্ষতা যথাযথভাবে যাচাইয়ের অভাব খানিকটা হলেও পূরণ হবে। প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক কৃষিবিদ শেখ মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, দেশে এই প্রথম এধরনের ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। এর আগে এধরণের কোনো ল্যাব ছিলনা।

ইতিমধ্যে ল্যাবটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। আইন প্রণয়ণের কাজ চলছে। প্রশিক্ষণসহ আনুসঙ্গিক অন্যান্য কাজ শেষে আগামী অর্থবছরেই এর কার্যক্রম শুরু হবে। চলমান যান্ত্রিকীকরণ কার্যক্রমকে টেকসই রুপ দিতে গুণগত মানসম্পন্ন কৃষি যন্ত্রপাতি প্রস্তুত বা আমদানিই অন্যতম প্রধান শর্ত। বর্তমানে দেশে বছরে প্রায় নয় হাজার কোটি টাকার কৃষি যন্ত্রপাতি ও খুচরা যন্ত্রাংশ( স্পেয়ার পার্টস) প্রস্তুত বা আমদানি হয়ে থাকে। অথচ দেশে এখানো এসব যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশের স্থায়িত্ব ও সক্ষমতা পরীক্ষা বা যাচাইয়ের কোনো ল্যাব বা কেন্দ্র নেই।

ফলে এ যাবত যন্ত্রের গুণগত মান ও দক্ষতা যথাযথভাবে পরীক্ষা বা যাচাই ছাড়াই কৃষকের কাছে হস্তান্তর করা হয়ে আসছে। এই সুযোগে নি¤œমানের যন্ত্র বাজারজাত হওয়ায় কৃষকরা নানা ধরণের প্রতারণার ফাঁদে জড়িয়ে ভোগান্তিতে পড়ছেন। এতে যন্ত্রিকরণের ওপর বিরুপ প্রভাব পড়ছে। কৃষি যন্ত্রপাতি টেস্টিং সুবিধা থাকলে যন্ত্রের স্থায়িত্ব ও দক্ষতা যাচাইয়ের পর কৃষকের নিকট সরবরাহ করা সম্ভব হবে।

এতে বিএসটিআই এর মতো জাতীয়ভাবে তৈরী বা আমদানি করা কৃষি যন্ত্রপাতি মান যাচাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া সাপেক্ষে প্রত্যয়ন দেয়ার শর্ত প্রবর্তন করা যাবে। যা টেকসই কৃষি যন্ত্রপাতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানিক ভিত্তি পাবে। গাজীপুর- চন্দ্রা সড়কের পাশে হর্টিকালচার সেন্টারে স্থাপিত ল্যারেটরিতে দেশের মোট যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশের খুব সামান্যই পরীক্ষা করা যাবে। দেশের সব এলাকার যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ পরীক্ষার জন্য এখানে আনা নেয়া করাও সম্ভব হবেনা। তাই সারা দেশে এধরণের আরও ল্যাবরেটরি গড়ে তুলতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত