প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদার মামলার রায়কে ঘিরে পাল্টা-পাল্টি তর্কে আ. লীগ-বিএনপি

সারোয়ার জাহান: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার জন্য আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) দিন ধার্য করেছেন আদালত। বিএনপি বলছে, নির্বাচনের আগে সরকার বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে ইচ্ছে করেই এই মামলা বেগবান করেছে। আর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বিএনপি এই মামলার রায়টিকে ব্যবহার করে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা করছে। দুই দলের পরস্পর বিরোধী এই বক্তব্যে নিয়ের উত্তপ্ত হয়েছে দেশের রাজনীতি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার ইচ্ছে করেই নির্বাচনী বছরে এসে বেগম জিয়ার মামলা বেগবান করেছে। সরকারের মন্ত্রীরা যে সকল মন্তব্য করছেন তাতে বোঝা যাচ্ছে সরকার আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বেগম জিয়াকে বাইরে রেখেই ৫ জানুয়ারির মত আরেকট নাটক বা প্রহসন করতে পারে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে বিএনপি দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করলে তা প্রতিহত করা হবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল হক হানিফ বলেন, বিএনপি বেগম জিয়ার রায়কে নিয়ে দেশে অস্থীতিশীল পরিস্থি সৃষ্টি করতে চাইছে। আদালতের বিচারাদিন বিষয় নিয়ে রাজনীতি করার কোনো সুযোগ নেই। আদালতের বিষয় নিয়ে কেউ যদি রাজনীতি করতে চায় তা হলে তা শুভ হবে না। বিচারাদিন মামলার রায় পক্ষে-বিপক্ষে যাই হোক তা আদালতের বিবেচ্য বিষয়।

সিনিয়র সাংবাদিক ও বিএনপির রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক আমানুল্লাহ কবির বলেন, বেগম জিয়ার মামলা বিএনপির জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই রায়ে বেগম জিয়ার যদি সাজা হয় তা হলে কি হবে। এ রায়কে কেন্দ্র করে রাজনীতির উত্তাপ রাজপথে চলে আসতে পারে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির এখন নির্বাচন এবং মামলার রায় এই দুটি বিষয় নিয়ে একটা ইস্যু তৈরির চেষ্টা করছে। আলটিমেটলি তারা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে চায়।

বিবিসি বাংলা থেকে মনিটর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত