শিরোনাম
◈ সুলতানস ডাইন রেস্টুরেন্ট সিলগালা করলো রাজউক ◈ ব্রহ্মপুত্রের বালুতে হাজার হাজার কোটি টাকার খনিজ সম্পদের সন্ধান ◈ সদ্য কারামুক্ত বিএনপি নেতা আমিনুল হকের বাসায় মঈন খান  ◈ জারদারি নাকি আচাকজাই, কে হবেন পাকিস্তানের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ◈ [১] মিয়ানমারের রাখাইনে আরেকট সেনাঘাঁটি  দখল করেছে আরাকান আর্মি  ◈  নাশকতার মামলায় দণ্ডিত বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দিন কারাগারে ◈ দুইটি বিদেশি পিস্তল, ৮১ রাউন্ড গুলিসহ সেই শিক্ষক গ্রেপ্তার ◈ আর্মি যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা ◈ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে স্বাস্থ্য বিভাগের তদন্ত দল ◈ রাজাকারের নতুন তালিকা দুই ভাগে ভাগ করা হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী 

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ, ২০২৩, ০২:৪৪ রাত
আপডেট : ২৫ মার্চ, ২০২৩, ০২:৪৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

শামীম সিকদার ও স্বোপার্জিত স্বাধীনতা

শামীম সিকদার

মাহবুব মাহগীর সুহৃদ: জীবনে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে, সমাজের প্রথা বা নিয়ম শৃংখল ভেঙ্গে বেরিয়ে আসতে হবে। পুরুষতান্ত্রিক এ সমাজে নারীর অধিকার রক্ষার আন্দোলন বহুদিন ধরে চলছিলো। কিন্তু কয়েক জন নারী এই বাধা বিপপ্তি অতিক্রম করেছিলেন, তাদের একজন হলেন শামীম সিকদার। 

মেয়েটি তখন বয়ঃসন্ধি কাল পেরুচ্ছে, আকৃতিতে বেশ লম্বা, সমবয়সী ছেলেদের থেকেও বেশ লম্বা। গায়ের রং বেশ কালো, দাঁতগুলি বেশ সাদা। চেহারায় গতানুগতিক নারীর কমনীয়তার অভাব, চোয়াল দুটো ইস্পাত কঠিন শক্ত। সাইকেল চালিয়ে রেকিং করা ওর অভ্যাস।

কেউ একদিক মেয়েটির ওড়নাটি টান মেরে নিয়ে গিয়েছিলো। সেই থেকে মেয়েটি আর ওড়না পরে না। এর বদলা নিয়েছিল, একাই সাত আটজন ছেলেকে কুংফু কারাতে দিয়ে নাস্তানাবুদ করেছিলো, সেই মেয়েটি হলো বিখ্যাত ভাষ্কর্য নির্মাতা। 

শামীম সিকদারের সাহস ও দুর্বৃত্তদের পিটানোর বিস্তারিত ঘটনাবহুল প্রতিচিত্র, লেখক আহমদ ছফার ‘অর্ধেক মানবী ও অর্ধেক ঈশ্বরী’ নামের আত্মজীবনীমূলক বইয়ে সুন্দরভাবে লেখা হয়েছে। ইভ টিজিংয়ের ঘটনা আগেও ছিলো, তবে সেগুলি কখনো পলিটিক্যাল কালার পায়নি। শামীম সিকদারের প্রতিবাদী কণ্ঠ তরুণীদের সাহস জুুগিয়েছিলো বহু বছর। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিদ্যার অধ্যাপক হয়েছিলেন তিনি। একুশে পদক (২০০০) ও অনেক পুরস্কারই তিনি অর্জন করেছিলেন।
ঢাকা বিশ্নবিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটের এই গুণী শিল্পী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভাস্কর্য  তৈরী করেছেন।

এই গুণী শিল্পীর গুণগ্রাহী অনেক তরুণ লেখক, কবি সাহিত্যিক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকও ছিলেন। তাদের অন্যতম ছিলেন বাংলা বিভাগের শিক্ষক কবি হুমায়ূন কবির। এক সময় আহমদ ছফার সাথে ঘনিষ্ঠতা গড়ে উঠেছিলো শামীম সিকদারের। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে  হুমায়ূন সাহেব ছফাকে পিস্তল দেখিয়ে সতর্ক করেছিলেন। পরবর্তীতে সিরাজ সিকদারের সাথে রাজনৈতিক মতদ্বৈধ বেড়ে গিয়েছিল এবং হুমায়ূন আততায়ীর হাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। 

ভাস্করের ভাই সিরাজ সিকদারের মৃত্যু নিয়ে অনেক রকম খবরাখবর ছাপা হয়েছিলো চারটি দৈনিক পত্রিকায়, সংক্ষিপ্ত আকারে। যদিও সংবাদগুলো সরকারী নির্দেশনায় ছাপতে হতো। ১৯৭৪ সালের ১৬ই জুনে এই কালো আইন চালু হয়েছিলো। সিরাজ সিকদারকে কবর দেয়া হয়েছে মোহাম্মদপুর ঈদগাহ মসজিদ কবরস্থানে। একই কবরে ওনার মা বাবাও শায়িত আছেন। 

স্বাধীনতা সংগ্রাম শামীম সিকদারের নিজের তৈরী একটি আবক্ষ শিল্পকর্ম। ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের এস এম হল, উদয়ন স্কুল আর ব্রিটিশ কাউন্সিলের কাছে এ শিল্পিত বাগানের স্থপতি শামীম সিকদার এখন স্মৃতি, মারা গেছেন গত ২১ মার্চ।

শামীমের বিয়ে হয়েছিলো সচিব জাকারিয়া সাহেবের সাথে। তাদের দুটি কন্যা আছে। শামীম সিকদার ও মৃণাল হককে নিয়ে আমার ফেসবুক টাইম লাইনে কয়েকটি লেখা  রয়েছে। আশা করি, আগ্রহীরা খুঁজে পড়বেন।

স্বোপার্জিত স্বাধীনতা শিল্পকর্মটি টিএসসির সড়ক দ্বীপে রয়েছে। আর এই এক বিশাল ভাস্কর্য সম্ভারে বঙ্গবন্ধু ও দেশ বিদেশের রাজনৈতিক নেতা, কবি, দার্শনিকসহ শিক্ষাবিদদের আবক্ষ শিল্পকর্ম স্থান পেয়েছে। এতে রবিঠাকুর, নজরুল, কার্ল মার্কসের আবক্ষ মূর্তি রয়েছে।

আমরা ভাস্কর্য বা মূর্তি বিতর্কে নিয়োজিত হয়ে নিজেদেরকে হীনমন্যতা ও কুরুচিপূর্ণতায় টেনে এনেছি। প্রকৃত সত্য, আমরা কখনো বলছি না। আমাদের মন্দির মসজিদ কিংবা গীর্জায় অসৎ পয়সা দান করবেন না। ছেলে মেয়ে বিয়ে দেবার সময়, সৎ পাত্র পাত্রীকে মূলাায়ন না করে কাদের খুঁজি; সেটি আর বুঝিয়ে বলতে হবে না। ধর্ম বিশ্বাস নিয়ে মৃত্যুবরণ চাই কিন্ত অধর্মের সাথে সারা জীবন জড়িয়ে আছি, এ সত্য উপলব্ধি করছি না।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়