শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী, ২০২৩, ০২:২৬ রাত
আপডেট : ২৫ জানুয়ারী, ২০২৩, ০২:২৬ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

কীভাবে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে ল্যাব পরিচালনা ও গবেষণা করি? 

মোহাম্মদ এ হালিম

মোহাম্মদ এ হালিম: অনেকে আমাকে প্রশ্ন করেন, কীভাবে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে ল্যাব পরিচালনা ও গবেষণা করি? বাংলাদেশে আমি প্রথম গবেষণার উদ্যোগ শুরু করি কানাডা থেকে ২০১৩ সালে। প্রথম দুই বছর ২০১৩-২০১৪ সালে অনলাইনে একটি ছোট টিম তৈরি করতে সচেষ্ট থেকেছি, তাদের কাজ শিখিয়েছি কিন্তু শক্তিশালী কোনো টিম তৈরি করতে পারিনি। ২০১৫ সালের ২১ ফ্রেরুয়ারিতে ১৩৪ গ্রীনরোডে ছাদের একটি পরিত্যক্ত রুমে নিজের জমানো টাকা ও বন্ধু-বান্ধবের কাছ থেকে কিছু টাকা  নিয়ে পাঁচটি কম্পিউটার কিনে ও কিছু সফটওয়ার দিয়ে ২০ জন তরুণ গবেষককে বিনামূল্যে ট্রেইনিং দিয়েছি। প্রতি শনি ও রবিবার তাদের সাথে গ্রুপমিটিং করি। ২০ জনের মধ্যে ৫/৬ জন লেগে ছিল। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন ও প্রাণ রসায়ন বিভাগ থেকে একটি টিম লেগেছিলো।

এখন সবচেয়ে বেশি কাজ করে চট্রগ্রামের ছেলেমেয়েরা। বর্তমানে পুরাতন ও নতুন রিসার্চ এসিট্যান্টরা মিলে রেড-গ্রীন নামক ছোট্ট গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি চালায় ঢাকা ও চট্টগ্রামে। কোভিডের  সময় ১৫০ অধিক গবেষক গবেষণা করছে বিভিন্ন প্রজেক্টে। দেশে অথবা বিদেশ থেকে দেশে গবেষণা করতে চাইলে সময় দিয়ে একটি টিম তৈরি করুন। মন-প্রাণ দিয়ে তাদের সাথে কাজ করুন, তাদের কাজের মানকে উন্নত করুন, নিজের শেখা ও প্রশিক্ষণকে তাদের কাছে পেশ করুন, তাদের প্রশংসা করুন, তাদের উদ্যোগে উৎসাহ দিন, তাদের সাথে গল্প করুন, দেশে ও বিদেশে ভালো জায়গায় যাতে তারা কাজ করতে পারে তার জন্য চেষ্টা করুন। তাদের শক্তিশালী করুন দেখবেন দেশে গবেষণার পরিবেশ সৃষ্টি হবেই। লেখক: গবেষক। ফেসবুক থেকে 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়