শিরোনাম
◈ ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ ◈ নো ম্যানস ল্যান্ডে থাকা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ প্রবেশে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু ◈ পুলিশ কর্মকর্তার গুলিতে আহত উড়িষ্যার মন্ত্রীর মৃত্যু ◈ কারাগারে অসুস্থ রিজভীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ◈ যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ’র উদ্দেশ্যে তুরস্কের পাল্টা ভ্রমণ সতর্কতা ◈ প্রমোদতরী গঙ্গা বিলাস কলকাতায়, মঙ্গলবার আসবে বাংলাদেশে ◈ ভোটের অধিকার ও গণতন্ত্র পনরুদ্ধারে আমরা একমত হয়েছি: মির্জা ফখরুল  ◈ মায়ের কাছেই থাকবে দুই জাপানি শিশু, মামলা খারিজ ◈ নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে জেরুজালেমে হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ ◈ খোঁজ মিলছে না উকিল আবদুস সাত্তারের প্রতিদ্বন্দ্বী আসিফের

প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ০৬:৩৭ বিকাল
আপডেট : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ০৭:৪৪ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যৌথ আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক রচিত: ভারতের রাষ্ট্রপতি

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু বলেছেন, বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক ভাষা, সংস্কৃতি ও ইতিহাস দ্বারা আবদ্ধ এবং এই অনন্য মেলবন্ধন যৌথ আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে রচিত হয়েছে। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, ভারতের ‘প্রতিবেশী প্রথম’ নীতিতে বাংলাদেশ একটি বিশেষ স্থান দখল করে আছে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) ভারতে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর নিকট পরিচয় পত্র পেশ করতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন।

দ্রৌপদী মুর্মু নতুন রাষ্ট্রদূতকে স্বাগত ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ এখন দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের বৃহত্তম বাণিজ্য অংশীদার। একই সঙ্গে তিনি ঢাকায় ভারতের সবচেয়ে বড় ভিসা কার্যক্রমের কথাও তুলে ধরেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০বছর, মুজিববর্ষ ও বাংলাদেশ-ভারত কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের যৌথ উদযাপনের বিষয়টি আনন্দের সাথে স্মরণ করেন এবং দু’দেশের মধ্যকার সম্পর্ককে এগিয়ে নিতে চলমান রাজনৈতিক সদিচ্ছা বজায় রাখার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

এছাড়া তিনি গত সেপ্টেম্বরে নয়াদিল্লী এবং পরে লন্ডনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর সাম্প্রতিক বৈঠকের কথাও স্মৃতিচারণ করেন।

হাই কমিশনার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ভারতের রাষ্ট্রপতিকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছেদেন। 

তিনি ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সংঘটিত বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত সরকার ও জনগণের সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি সাম্প্রতিক কালেরবাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ককে ‘প্রতিবেশী সম্পর্কের মডেল’ হিসেবে অভিহিত করেন। 

হাই কমিশনার আগামী দিন গুলোতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতাকে আর ও সম্প্রসারিত ও সুসংহত করতে প্রয়াস চালিয়ে যাবেন বলে ভারতীয় রাষ্ট্রপতিকে আশ্বস্ত করেন।

বাংলাদেশের নবনিযুক্ত হাই কমিশনার জয়-জিতের ভিত্তিতে আঞ্চলিক ও উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরন্তর প্রচেষ্টার বিষয়টিও তুলে ধরেন। তিনি ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য জি-২০ সম্মেলনে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য ভারত সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

হাই কমিশনার রহমান সুইজারল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও জেনেভাস্থ জাতিসংঘ কার্যালয় ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থায়, বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করার পর ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

টিআই/এএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়