শিরোনাম
◈ মিয়ানমারের ২৮৫ জন সেনা ফেরত যাবে, ফিরবে ১৫০ জন বাংলাদেশি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ ভারতে লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফায় ভোট পড়েছে ৫৯.৭ শতাংশ  ◈ ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ গড়ার কাজ শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী: ওয়াশিংটনে অর্থমন্ত্রী ◈ দাম বেড়েছে আলু, ডিম, আদা ও রসুনের, কমেছে মুরগির  ◈ ২০২৫ সালের মধ্যে ৪৮টি কূপ খনন শেষ করতে চায় পেট্রোবাংলা ◈ ভিত্তিহীন মামলায় বিরোধী নেতাকর্মীদের নাজেহাল করা হচ্ছে: মির্জা ফখরুল ◈ বিনা কারণে কারাগার এখন বিএনপির নেতাকর্মীদের স্থায়ী ঠিকানা: রিজভী ◈ অপরাধের কারণেই বিএনপি নেতা-কর্মীদের  বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী  ◈ অ্যাননটেক্সকে জনতা ব্যাংকের সুদ মওকুফ সুবিধা বাতিলের নির্দেশ বাংলাদেশ ব্যাংকের ◈ চুয়াডাঙ্গায় তাপমাত্রা ৪১ দশমিক ৩ ডিগ্রি, হিট এলার্ট জারি 

প্রকাশিত : ০৪ এপ্রিল, ২০২৪, ০১:২৩ রাত
আপডেট : ০৪ এপ্রিল, ২০২৪, ০৫:১১ বিকাল

প্রতিবেদক : সালেহ্ বিপ্লব

স্বাধীন ফিলিস্তিনের পক্ষে বাংলাদেশ,  মাহমুদ আব্বাসকে চিঠি শেখ হাসিনার

শেখ হাসিনা ও মাহমুদ আব্বাস

সালেহ্ বিপ্লব: [২] ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে দেওয়া চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সকল আন্তর্জাতিক ফোরামে জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের পূর্ণ সদস্যপদ লাভের প্রয়াসকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে বাংলাদেশ। বাসস

[৩] প্রধানমন্ত্রী গাজার কোনো অংশ পুনর্দখলের ইসরাইলি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরেন আবারো। একই সঙ্গে  গাজাবাসীকে তাদের নিজস্ব ভূখণ্ড থেকে বিতাড়িত না করা এবং ইসরাইলের পাশাপাশি ফিলিস্তিনিদের একটি পৃথক স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অধিকারকে সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা।

[৪] চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ৮ অক্টোবর থেকে গাজা এবং পশ্চিম তীরে নিরবচ্ছিন্ন ইসরাইলি গণহত্যায়  শিশু, নারী ও পুরুষসহ নিরপরাধ মানুষের প্রাণহানির মর্মান্তিক ক্ষয়ক্ষতিতে ফিলিস্তিনের সরকার ও ভ্রাতৃপ্রতিম জনগণের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি। তিনি গত ১৯ মার্চ মাহমুদ আব্বাসের লেখা চিঠির প্রাপ্তি স্বীকার করেন। 

[৫] শেখ হাসিনা একটি দীর্ঘমেয়াদী যুদ্ধবিরতির জন্য তার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন এবং বেসামরিক জীবন ও অবকাঠামো রক্ষায় সংশ্লিষ্ট সকলকে সংযম প্রদর্শনের আহ্বান জানান। 

[৬] তিনি গাজার জন্য ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর ‘ডে আফটার’ যুদ্ধোত্তর পরিকল্পনা সম্পর্কে অবগত রয়েছেন বলে উল্লেখ করেন। এ নিয়ে মাহমুদ আব্বাসের গভীর উদ্বেগকে সমর্থন করে তিনি বলেন, পরিকল্পনাটি ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকারের অবমাননা এবং আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির লঙ্ঘন।

[৬.১] শেখ হাসিনা বলেন, এটা হতাশাজনক যে পরিকল্পনাটি সংঘাত বন্ধে এই দীর্ঘস্থায়ী কোনো বাস্তব পথ প্রদান করতে ব্যর্থ হয়েছে। বরং, এর উদ্দেশ্য হচ্ছে গাজায় ফিলিস্তিনিদের বৈধ জাতীয় আকাক্সক্ষাকে দমন করা এবং ভূমির ওপর ইসরাইলি নিয়ন্ত্রণ স্থায়ী করা।

[৬.২] প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই প্রেক্ষাপটে, আমরা আমাদের দৃঢ় অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করছি যে, ইসরায়েলের পাশাপাশি একটি পৃথক ও স্বাধীন রাষ্ট্রে ফিলিস্তিনিদের অধিকার প্রত্যাখ্যান করা হবে না।’

[৭] শেখ হাসিনা বলেন, আমরা আরও মনে করি যে; সামরিক উপায় এই সংঘাতের সমাধান নয়। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের রেজুলেশন এবং ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অফ জাস্টিসের আদেশের উপর ভিত্তি করে চলমান সংকট সমাধানের জন্য একটি বিশ্বাসযোগ্য প্রক্রিয়া বাস্তবায়নের সময় এসেছে, যা শুধুমাত্র ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলিদের পাশাপাশি বসবাসকারী দুই-রাষ্ট্রীয় সমাধানের মাধ্যমেই অর্জন করা যেতে পারে।

[৮] বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, দখলদারিত্ব ও গণহত্যার শিকার একটি জাতি হিসেবে আমরা প্রকৃতপক্ষে দখলকৃত ও নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের দুর্দশা অনুভব করি। এইভাবে, আমরা আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে ফিলিস্তিনের জনগণের সাথে আমাদের পূর্ণ সংহতি প্রকাশ করছি, ইসরায়েলি দখলদারিত্বের নিন্দা জানাচ্ছি এবং আন্তর্জাতিক আইনের ভিত্তিতে একটি ন্যায়সঙ্গত সমাধানের পক্ষে কথা বলছি।

[৯] তিনি বলেন, মুসলিম ভাই হিসেবে, আমরা পূর্ব জেরুজালেমের রাজধানী হিসাবে ১৯৬৭ সালের সীমানাসহ স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্য আপনার যথার্থ  আকাক্সক্ষার প্রতি আমাদের সমর্থনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং অবিচল থাকব। 

[৯.১] তিনি বলেন, ন্যায়বিচার, শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখা ইসলাম এবং সকল মহান ধর্মের মূল শিক্ষা। এটাকে আমরা সকল দ্বন্দ্ব ও ভোগান্তি নিরসনে প্রতিষেধক বলে মনে করি।

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়