শিরোনাম
◈ তিস্তায় নৌকাডু‌বিতে শিশু নিহত ◈ নৌকাডুবিতে নিখোঁজ অভিবাসীর খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে ইতালির কোস্টগার্ড ◈ উড়তে থাকা যুক্তরাষ্ট্রকে মাটিতে নামিয়ে আনলো দক্ষিণ আফ্রিকা ◈ ১৪ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৬৪ কোটি ডলার ◈ শরীয়তপুরে চেম্বার থেকে আইনজীবীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ◈ বিশ্বকাপের সুপার এইট শুরু, শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ   ◈ সেনাবাহিনী প্রধানের ৯, ১৭ ও ৩৩ পদাতিক ডিভিশনে বিদায়ী দরবার ◈ নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা শুক্রবার দিল্লি যাচ্ছেন, ২২ জুন শীর্ষ বৈঠক ◈ দেশ ছাড়িনি, চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে আছি: আছাদুজ্জামান মিয়া  ◈ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়া-রাশিয়া একে অপরকে সাহায্য করবে, কৌশলগত অংশীদারত্ব চুক্তি সই

প্রকাশিত : ১০ জুন, ২০২৪, ০৭:৩৮ বিকাল
আপডেট : ১০ জুন, ২০২৪, ০৭:৩৮ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পার্বত্য অঞ্চলে কুকি-চীন আতঙ্ক কমছে না 

সালেহ ইমরান: [২] বান্দরবান ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় খুন-অপহরণের মতো ভয়াবহ সব অপরাধ ঘটিয়ে যাচ্ছে কুকি চীন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ)। তাদের তৎপরতায় আতঙ্কে আছে বাঙ্গালীদের পাশাপাশি চাকমাসহ বিভিন্ন পাহাড়ি গোষ্ঠী। (পূর্বকোণ ০৮-০৬-২০২৪)

[৩] সম্প্রতি বান্দরবানের রুমা ও থানছিতে ব্যাংক ডাকাতি, অস্ত্র লুট ও অপহরণের মাধ্যমে কেএনএফ ব্যাপক শক্তিমত্তার  জানান দেয়। যৌথ বাহিনীর সাঁড়াশী অভিযানেও আতঙ্কমুক্ত হতে পারছে না পার্বত্যবাসী। 

[৪] রাব-১৫ অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাজ্জাদ হোসেন বলেন, কেএনএফের সশস্ত্র সদস্যদের ছবিসহ তালিকা আমাদের কাছে আছে। সর্বশেষ গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী তাদের প্রধান নাথাম অবস্থান এখন নেদারল্যান্ডে। র‌্যাব তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে কেএনএফের অবস্থান নিশ্চিত করে অভিযান চালাচ্ছে। (বিডিনিউজ ০৭-০৬-২০২৪) 

[৫] মূলত মং, লুসাই, পাংখোয়া, ম্রো ও খিয়াং উপজাতি গোষ্ঠির লোকেরা কুকি চীনে যোগ দিচ্ছে। বান্দরবান সদর, রুমা, বরকল, বঘাইছড়ি, রুয়াংছড়ি এবং বিলাইছড়িতে তাদের বসবাস। এলাকাগুলো মিয়ানমারের চিন প্রদেশ ও ভারতের মিজোরাম রাজ্য সংলগ্ন। কুকি জনগোষ্ঠীর দাবি, দুটি দেশেই তারা কোনঠাসা। বাংলাদেশে পার্বত্য শান্তি চুক্তির পর চাকমাসহ কয়েকটি পাহাড়ি জনগোষ্ঠি ব্যাপক সুযোগ-সুবিধা ভোগ করলেও কুকিরা একেবারেই বঞ্চিত । সেই বঞ্চনা থেকেই সশস্ত্র সংগ্রামের পথ বেছে নিয়েছে তারা, এমনই দাবি কুকি নেতাদের। (সময় টিভি ০৯-০৬-২০২৪)

[৬] রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি, বরকল, জুরাইছড়ি, বিলাইছড়ি, বান্দরবানের রুমা, রোয়ংছড়ি, লামা, থানচি ও আলীকদম এই নয়টি উপজেলা নিয়ে পৃথক একটি কুকি রাষ্ট্র গঠনের লক্ষ্যে সশস্ত্র সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে কেএনএফ। 

[৭] গোয়েন্দা তথ্যে জানা যায়, কুকি চীনের সদস্যরা মিয়ানমারের চীন রাজ্যে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং সেখানেই তাদের সদর দফতর। তারা পার্বত্য এলাকায় হাতে তৈরি বোমা বা এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস পুঁতে রাখে। তাদের পুঁতে রাখা বোমায় নিহত হয়েছেন সেনা সদস্যসহ কমপক্ষে ১৩ জন। যৌথ বাহিনীর সাম্প্রতিক অভিযানে কেএনএফের ১৬/১৭ জনের মতো গ্রেপ্তার হয়েছে। ( রাইজিং বিডি ০৯-০৬-২০২৪)। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়