শিরোনাম
◈ দুর্ঘটনায় রুবিনার মৃত্যু, শিক্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তিতে সহায়তা করবে পুলিশ ◈ নয়াপল্টনের সমাবেশে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে সরকারকে: আমান ◈ চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সয়াবিন, চাল ও চিনি  ◈ রাজশাহীতে বিএনপির গণসমাবেশ: পথে পথে তল্লাশি ◈ রাজনৈতিক দলগুলোই বিদেশিদের কথা বলার সুযোগ করে দিচ্ছে  ◈ আইপিএলে এবার সাকিবের ভিত্তিমূল্য কত? ◈ পরিবহন ধর্মঘটের কারণে রাজশাহীর সমাবেশে ট্রেনে আসছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা ◈ পোশাক রপ্তানিতে আবারো ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে গেল বাংলাদেশ ◈ গত বছরের চেয়ে প্রবাসী আয় ১ বিলিয়ন ডলার কমতে পারে ◈ বিএনপির আগুন, লাঠি, দুর্নীতি ও ভোট চুরির বিরুদ্ধে খেলা হবে: কাদের

প্রকাশিত : ০৫ অক্টোবর, ২০২২, ০৬:২৫ বিকাল
আপডেট : ০৫ অক্টোবর, ২০২২, ০৬:২৫ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মাঠে ফেলে যাওয়া সেই বৃদ্ধার ঠাই হলো বৃদ্ধাশ্রমে

তাসীন তিহামী, কুমিল্লা : তিতাস উপজেলার মাছিমপুর খেলার মাঠে ফেলে যাওয়া ৬০ বছরের বৃদ্ধা কাজল বেগমকে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চর বেতাগৈর ইউনিয়নের চর কামাটখালীর মাতৃছায়া সমাজকল্যাণ সংস্থা ও বৃদ্ধাশ্রমে রাখার ব্যবস্থা করেছে মানবিক সংগঠন ফ্রেন্ডস ক্লাব। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা হালিম সৈকতের নেতৃত্বে একটি দল বৃদ্ধাশ্রমে নিয়ে যান বৃদ্ধাকে।

বৃদ্ধাকে নিয়ে বৃদ্ধাশ্রমের পরিচালক মো. রফিকুল ইসলামের হাতে তুলে দেন ফ্রেন্ডস ক্লাবের সদস্যরা। দলে সহযাত্রী হিসেবে ছিলেন ফ্রেন্ডস ক্লাবের প্রধান সমন্বয়ক মো. সবুজ মিয়া, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মো. জুয়েল রানা, সালাহউদ্দিন সিকদার, ফজিলত বেগম ও সেলিম মিয়া। এসময় সহযোগিতা হিসেবে ৫ হাজার টাকা প্রদান করা হয় বৃদ্ধাশ্রয়কে। 

উল্লেখ্য, গত ২২ সেপ্টেম্বর উপজেলার মাছিমপুর বাজার সংলগ্ন খেলার মাঠে এক বৃদ্ধা মহিলাকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। ঐ রাতে মহিলাটি একই স্থানে পড়ে থাকায় পরদিন দুপুরে ফেইসবুকে বিষয়টি ভাইরাল হয়।

পরে উপজেলা চেয়ারম্যান স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ফ্রেন্ডস ক্লাবকে এগিয়ে আসার আহ্বান করলে বৃদ্ধ মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসেন সংগঠনের সদস্যবৃন্দ। 

ফ্রেন্ডস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা হালিম সৈকত জানান, কে বা কারা মাঠে এক বৃদ্ধাকে ফেলে যায়, পরে ঐ বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে আমরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি।

মহিলাটিকে দেখাশোনার জন্য আরো দুইজন মহিলাকে নিযুক্ত করেছিলাম। পরিচয় জানার চেষ্টা করা হলে অস্পষ্ট গলায় মহিলাটি বলেন, “আমার গায়ে গন্ধ আসে”।

বাড়ির নাম জানতে চাইলে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শুধু বলতে পারেন।তিনি আরো বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকসহ জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকায় নিউজ হওয়ার পরও কেউ সন্ধান না করায় তাকে অবশেষে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি।

আমাদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন তিতাস উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. পারভেজ হোসেন সরকার ও তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. সরফরাজ হোসেন খান।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়