শিরোনাম
◈ ৫ শতাংশ কোটা রেখে সংসদে আইন পাসের দাবিতে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম ◈ রেলওয়ের চাকরিতে ৪০ শতাংশ পোষ্য কোটা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট ◈ আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশ লেলিয়ে দেবেন না: সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি ◈ জামালপুরে বন্যার পানিতে গোসলে নেমে ৪ জনের মৃত্যু ◈ সাংবাদিকদের পেনশন স্কিমে যুক্ত হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ◈ মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এতো ক্ষোভ কেনো, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর ◈ ট্রাম্পের ওপর হামলা দুঃখজনক: শেখ হাসিনা  ◈ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিকে আর্তমানবতার সেবায় আরও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান রাষ্ট্রপতির ◈ কোটা প্রসঙ্গে আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে এখন আমার বলার কিছুই নাই: প্রধানমন্ত্রী  ◈ প্রশ্নফাঁসের সুবিধাভোগীদের আইনের  আওতায় আনা হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত : ১৫ জুন, ২০২৪, ০৫:৪৪ বিকাল
আপডেট : ১৫ জুন, ২০২৪, ০৫:৪৪ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মন্ত্রীর বাসার লিফটে কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগে মামলা

সুজন কৈরী: [২] গত বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর পরীবাগ এলাকার দিগন্ত টাওয়ারে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মো. আবদুর রহমানের বাসার লিফটে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তাকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে আরেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাজধানীর শাহবাগ থানায় করা মামলায় হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে।

[৩] অভিযোগ ওঠার পর ‘হামলাকারী’ কর্মকর্তার নতুন পদায়ন বাতিল করা হয়েছে।

[৪] ভুক্তভোগী কর্মকর্তা হলেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) মলয় কুমার শূর। আর অভিযুক্ত কর্মকর্তা অধিদপ্তরের জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা (লিভ, ডেপুটেশন অ্যান্ড ট্রেনিং রিজার্ভ) মো. আজিজুল ইসলাম।

[৫] শাহবাগ থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আসামি আজিজুলকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। 

[৬] এজাহারে উল্লেখ করা তথ্য অনুযায়ী, প্রশাসনিক বিষয়ে দিকনির্দেশনার জন্য প্রাণিসম্পদমন্ত্রী তার বাসভবন দিগন্ত টাওয়ারে মলয় কুমারকে আসতে বলেছিলেন। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া আটটার সময় মন্ত্রীর বাসায় যান তিনি। কাজ শেষে সোয়া নয়টার দিকে টাওয়ারের লিফটে নিচতলায় নামেন।

[৭] আজিজুল লিফটের সামনে আগে থেকেই ভারী কোনো বস্তু নিয়ে অবস্থান করছিলেন। লিফটের দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গে মলয় শূরকে ধাক্কা দিয়ে লিফটের ভেতর ফেলে দেন তিনি। হত্যার উদ্দেশ্যে মাথা ও নাকে আঘাত করে জখম করেন। 

[৮] মলয় চিৎকার করলে নিরাপত্তাপ্রহরীরা এগিয়ে আসেন। তখন ভয়ভীতি দেখিয়ে ও জীবননাশের হুমকি দিয়ে পালিয়ে যান আজিজুল। এরপর মলয়কে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। 

[৯] তার মুখমণ্ডল ফেটে যাওয়ায় সেলাই দিতে হয়েছে ও স্থায়ী ক্ষত হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। এ ছাড়া বুক ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়েছে।

[১০] মলয় কুমার গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা শেষে ফেরার পথে লিফট থেকে নামতে যাব, তখনই আজিজুল আমাকে অতর্কিত আক্রমণ করেন। হত্যার উদ্দেশ্যে কোনো ভোঁতা বস্তু দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করেন।

[১১] হামলার সম্ভাব্য কারণ সম্পর্কে মলয় শূর বলেন, আজিজুল ইসলামকে মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার পরিচালক পদমর্যাদার একটি পদে পদায়ন করে। যেহেতু তিনি (মলয়) প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন), তাই এ বিষয়ে মন্ত্রীকে মতামত দিয়েছিলেন। 

[১২] বিভাগীয় মামলায় শাস্তিপ্রাপ্ত অবস্থায় আজিজুলের নতুন পদায়ন হয়। আইন অনুযায়ী তিনি কথা বলেছেন। এটা কারও পক্ষে যেতে পারে, বিপক্ষেও যেতে পারে। এ কারণে আজিজুল তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে থাকতে পারেন। সম্পাদনা: কামরুজ্জামান

এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়