প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ব্যক্তিমালিকানার গুদাম থেকে জব্দ চাল-গম ফেরত দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

খালিদ আহমেদ: [২] বিচারপতি মো. মজিবর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ নির্দেশ দেন।

[৩] এর আগে গত ২১ মার্চ কমলনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও এনএসআইয়ের যৌথ অভিযানে জব্দ সরকারি সিল লাগানো ৯৫ টন চাল ও ২০ টন গমের নিলামে স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

[৪] ওই রুল নিষ্পত্তি করে আজ রায় দিলেন হাইকোর্ট। রায় পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে মালিককে এসব চাল ও গম ফেরত দিতে বলা হয়েছে।

[৫] রিটকারীর আইনজীবী আবদুস সাত্তার পালোয়ান বলেন, ওই চাল ও গম খাদ্য অধিদপ্তরের বস্তায় পাওয়ায় তাঁদের (অভিযান পরিচালনাকারী) মনে হয় সেগুলো সরকারি বিভিন্ন বরাদ্দের খাদ্যশস্য। আসলে তা ছিল কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা) প্রকল্পের, যা প্রকল্প সভাপতিরা আবেদনকারীর কাছে বিক্রি করে ১৯টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করেন।

[৬] ২০২০ সালের ২ জুলাই কমলনগরের আব্দুর রবের মালিকানাধীন গোডাউনে ইউএনও এবং গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই যৌথ অভিযান চালায়। অভিযানে গুদাম থেকে ৯৫ টন চাল ও ২০ টন গম জব্দ করা হয় এবং গোডাউনটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

[৭] ওই সময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সরকারি বিভিন্ন বরাদ্দের চাল খাদ্য অধিদপ্তরের সিলযুক্ত বস্তায় করে স্থানীয় ব্যবসায়ী আব্দুর রব তাঁর গুদামে অবৈধভাবে মজুত করে রেখেছেন এমন সংবাদ পান জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) জেলা কর্মকর্তারা। পরে সংস্থার লক্ষ্মীপুরের পরিচালক মানিক চন্দ্র দে স্থানীয় ইউএনও মোবারক হোসেন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে যান।

[৮] অভিযানের সময় আব্দুর রবের গুদামের সামনে ট্রাকে ভর্তি ২০ টন গম ও গুদামের ভেতরে ৯৫ টন সরকারি চাল পেয়ে তাঁর দুটি গুদাম সিলগালা করা হয়। তবে এ সময় কাউকে আটক করা যায়নি।

[৯] এ নিয়ে পরে উপজেলা প্রশাসন নিলামের জন্য গত ৮ মার্চ দরপত্র আহ্বান করে। পরে নিলামের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন গুদাম মালিক।

সর্বাধিক পঠিত