প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হোমনায় বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ২০

রুবেল মজুমদার: [২] কুমিল্লার হোমনায় বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধসহ ২৪ জন আহত হয়েছে। রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) উপজেলার ঘারমোরা বাজারে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

[৩] সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। বর্তমানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

[৪] উভয় পক্ষের আহতরা হলেন- রাজিব মিয়া, শাহ আলম, জিলানী, অজিত, শাহ আলম, নজরুল মিয়া, কবির হোসেন, ইকবাল মিয়া, আশাবুদ্দিন, ইকবাল হোসেন, কেটা মায়া, আজগর আলী, সানাউল্লাহ, আরিফ, শুভ, জিলানি, জুয়েল, তানভীর, সাইদুল, মোমেন, বাদশা মিয়া, হৃদয়। এদের মধ্যে রাজিব মিয়া ও শাহ আলম, আলী আকবর, সাব মিয়া শুভও মোমেন মারাত্মক আহত। সকলকেই কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

[৫] এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড় ঘারমোড়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ের বিয়ে ঠিক হয় উপজেলার বাগমারা গ্রামে এক ছেলের সাথে। গত শুক্রবারে বিয়ের দিন নির্ধারিত হয়, গত বৃহস্পতিবার গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানে ডিজে মিউজিক চলার সময় রাতে পাশের ফজুর কান্দি গ্রামের রাসেল ইমরান, অন্তর সহ ৮/৯ জন ছেলে গিয়ে মেয়েদের ছবি উঠাতে থাকে। এসময় বড়ঘারমোড়া গ্রামের কয়েকজন ছেলে এসব ছবি ডিলিট করতে বলে এই নিয়ে এদের মধ্যে কথাকাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে গত শনিবার সকালে বড় ঘারমোরা গ্রামের মো. সাব মিয়া বাজারে আসলে তার দুধ মাথায় ঢেলে দিয়ে অপমান করে এবং তাকে মারধর করে হুজুর কান্দি গ্রামের কয়েকজন ছেলে। এই ঘটনায় সাব মিয়ার ভাই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে হুজুর কান্দি গ্রামের ১৫ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেন। পুলিশ হুজুরকান্দি গ্রামের বকুল নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে। এই নিয়ে দুই গ্রামের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিললো। আজ সকাল ৮টার দিকে দুই গ্রামের লোকজন ঘাড়মোড়া বাজারে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে, এতে ২০ থেকে ২৪ জন আহত হয়। এদের মধ্যে ১২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

[৬] বড় ঘারমোরা গ্রামের আউয়াল মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার হুজুর কান্দি গ্রামের কয়েকজন বখাটে ছেলে আমাদের বাড়িতে এসে মেয়েদের ছবি উঠায় এসকল ছবি ডিলেট করা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। শনিবার বাজারে গেলে হুজুর কান্দি গ্রামের লোকজন মো. সাব মিয়া নামের একজন মুরুব্বীকে মারধর করে এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।

[৭] আজ সকালে হুজুর কান্দি গ্রামের লোকজন ইয়ারগান সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের গ্রামের লোকজন উপর হামলা করে তাদের গুলিতে দুইজন সহ ১৫ জন আহত হয়েছে।

[৮] এ দিকে হুজুর কান্দি গ্রামের গোলাম মোস্তফা জানান, ছেলেপেলেদের মধ্যে সমস্যার ঘটনা আমরা মিটমাট করার জন্য চেষ্টা করছিলাম, এ সময় বড় ঘারমোরা গ্রামের লোকজন আমাদের গ্রামের লোকজন ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ১০/১২ জন আহত হয়েছে। কোন গুলির ঘটনা ঘটেনি। এদের ইটের আঘাতে আমাদের লোকজন আহত হয়েছে।

[৯] ঘারমোড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মোল্লা জানান, বৃহস্পতিবার বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে ছেলেদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে গত শনিবার একজনকে মারার ঘটনায় থানায় মামলা হলে একজন গ্রেপ্তার হয়। আজকে বিষয়টি মিটমাট করার জন্য বসারর কথা ছিল। কিন্ত এর মধ্যেই ফজুরকান্দি ও বড় ঘারমোরা গ্রামবাসি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে নিয়ন্ত্রণ করে।

[১০] হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আবুল কায়েস আকন্দ জানান, বড় ঘাড়মোয় একটি বিয়ে বাড়িতে ফজুর কান্দি গ্রামের কয়েকজন ছেলে ছবি তুললে ঐ গ্রামের লোকজন বাধা দেয়। এ ঘটনার জের ধরে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে গত শনিবার একজনকে মারধর করে হুজুর কান্দি গ্রামের লোকজন এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে একজন গ্রেপ্তার হয়েছে। এই ঘটনার জের ধরে আজ সকালে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিবেশ এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত