শিরোনাম
◈ যড়যন্ত্র না থাকলে পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধ হলো কেন, প্রশ্ন হাইকোর্টের ◈ শিমুলিয়া ঘটে প্রায় ২০০ বাইক নিয়ে ছাড়লো ফেরি ◈ ‘সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত’ ◈ প্রথম ১৫ ঘণ্টায় পদ্মা সেতুতে আয় দেড় কোটি টাকা ◈ বিশ্ব গণমাধ্যমে পদ্মা সেতু: জাতির গর্ব ও সামর্থ্যের প্রতীক  ◈ পদ্মা সেতুর জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে এশিয়ার ৫ দেশ ◈ নাশকতাই ছিলো পটুয়াখালী ছাত্রদল কর্মী বাইজীদের উদ্দেশ্য: সিআইডি ◈ পদ্মা সেতুতে প্রথম দিনেই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই প্রাণহানি ◈ জাতিসংঘে র‌্যাপোটিয়ারের দাবি অর্থহীন: তথ্যমন্ত্রী ◈ খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে বাসভবনে দুই নাতনি

প্রকাশিত : ১৫ মে, ২০২১, ০১:২৭ রাত
আপডেট : ১৫ মে, ২০২১, ০১:২৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

স্বামীর অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া মেটাতে যা করলেন স্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দিশে হারা মানুষ। সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিষেবা নিয়ে সমস্যা বেড়েই চলেছে। এবার দাদাগিরির অভিযোগ উঠলো অ্যাম্বুলেন্স চালকের বিরুদ্ধে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, ৬ ঘণ্টার জন্য ৩৩ হাজার রুপি দাবি করেন ওই অ্যাম্বুলেন্স চালক। উপায় না পেয়ে বাধ্য হয়ে গয়না বন্ধক রেখে ভাড়া মেটান ওই বধূ।

হুগলির উত্তরপাড়ার বাসিন্দা ওই নারীর স্বামী দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ। উত্তরপাড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। সেখান থেকে স্বামীকে কলকাতার অন্য হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেন ওই নারী। অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া ঠিক হয় ১২ হাজার রুপি।

কিন্তু কলকাতার একাধিক হাসপাতালে ঘুরেও বেড পাননি তারা। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে অসুস্থ স্বামীকে উত্তরপাড়া ফিরিয়ে নিয়ে যান তিনি। অ্যাম্বুলেন্স চালক ভাড়া বাবদ দাবি করেন ৩৩ হাজার রুপি। কিন্তু এতো অর্থ তার কাছে নেই, অ্যাম্বুলেন্স চালককে বোঝানোর চেষ্টা করেন ওই বধূ। তাতে কাজ হয়নি। শেষ পর্যন্ত গয়না বন্ধক দিয়ে অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া মেটাতে বাধ্য হন তিনি।

এ ব্যাপারে অ্যাম্বুলেন্সের মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে চালকের সঙ্গে কথা বলবেন এমন আশ্বাস দিয়েছেন। তবে এই প্রথম নয় দেশটিতে পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে কয়েকগুণ ভাড়া হাতিয়ে নিচ্ছেন চালক। যা করোনা পরিস্থিতিতে আরও বেড়েছে।

  • সর্বশেষ