প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]করোনা থেকে দ্রুত সুস্থতায় কার্যকরী অ্যাজমার ঔষধ বাডসোনাইড

লিহান লিমা: [২] ইনহেলারে ব্যবহৃত স্বল্পমূল্যের ঔষধ বাডসোনাইড ঘরেই বয়স্ক করোনা রোগীদের দ্রæত সুস্থ করে তুলতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে বলে সোমবার যুক্তরাজ্যের এক গবেষণায় উঠে এসেছে। ডাক্তাররা বলছেন, এই গবেষণার ফলাফল বিশ্বজুড়ে করোনার চিকিৎসায় পরিবর্তন নিয়ে আসবে। বিবিসি, গার্ডিয়ান

[৩]অক্সফোর্ডের এই গবেষকরা দেখেছেন, ৫০উর্ধ্বদের করোনায় শনাক্ত হওয়ার প্রাথমিক অবস্থায় যদি তাদের বাডসোনাইডের দুই ডোজ দিনে দেয়া হয় তবে সেটি তাদের সুস্থ করে তুলতে অত্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা রাখে। সেই সঙ্গে এই ঔষধ হাসপাতালে ভর্তির সম্ভাবনাও হ্রাস করে।

[৪]ইংল্যান্ডের জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থার নির্বাহী পরিচালক প্রফেসর স্টেফান পোইস বলেন, পরীক্ষায় অংশ নেয়া রোগীদের মতামত নেয়ার পর ইতোমধ্যেই ডাক্তারদের এই ঔষধ দ্বারা নির্দিষ্ট রোগীদের চিকিৎসা করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

[৫] গবেষণার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রফেসর মোনা বাফাদেল বলেন, ‘অন্য করোকোস্টেরয়েডের মতো বাডসোনাইড ইনহেলারের মাধ্যমে ফুসফুসে চলে যায়। ফুসফুসে যেখানে ভাইরাস আক্রমণ করে সেখানে এটা কাজ করে এবং প্রদাহ কমিয়ে আনে।’

[৬]৫০-উর্ধ্ব ১ হাজার ৭’শ উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন কোভিড রোগীর ওপর পরীক্ষা চলানো হয়। প্রথম সপ্তাহে ৭৫১জনকে ইনহেলারের সাহায্যে দিনে দু’বার বাডসোনাইড দেয়া হয়। এই গ্রæপটি গড়ে তিন দিনের মধ্যে স্বাভাবিক চিকিৎসা দেয়া অন্য গ্রæপের চেয়ে দ্রæত সুস্থ হয়ে ওঠে। দ্বিতীয় গ্রæপকে প্যারাসিট্যামল ও পর্যাপ্ত বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছিলো।

[৭]সেই সঙ্গে প্রাথমিক পরীক্ষায় বাডসোনাইড নেয়া রোগীদের হাসপাতালে ভর্তির হারও অন্যদের চেয় কম বলে দেখা গিায়েছে। এই ইনহেলার দেয়া রোগীদের হাসপাতালে ভর্তির হার ৮.৫, অন্য রোগীদের ১০.৩।

[৮]ল্যাবপরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, বাডসোনাইড ভাইরাসের বৃদ্ধির জৈবিক প্রক্রিয়াও হ্রাস করতে সক্ষম।

[৯]তবে করোনাজনিত মৃত্যু প্রতিরোধসহ অন্যান্য বিষয়ে এই ঔষধের কার্যকারীতা সম্পর্কে আরো ব্যাপক গবেষণা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

[১০]বর্তমানে বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নেয়া করোনা রোগীদের চিকিৎসা করার জন্য ঔষধ-পত্র ও সামগ্রী অত্যন্ত সীমিত। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শুধুমাত্র প্যারাসিট্যামল ব্যবহার করা হয়। করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির ফুসফুস মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অ্যাজমার ঔষধ বাডসোনাইড অত্যন্ত সহজলভ্য এবং এটি ফুসফুসে কাজ করে বিধায় রোগীকে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ার ঝুঁকি থেকে রক্ষা করে। একটি ইনহেলারের মূল্য ১ হাজার ৬শ।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত