প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কমলালেবুর কথা

ডেস্ক রিপোর্ট: কিছুটা গরম-ঠাণ্ডা চলছে। এতে অনেকের জ্বর হচ্ছে, ঘাম জমে হচ্ছে কাশি, টনসিলে ইনফেকশন, গলা ব্যথা। এ অবস্থা থেকে রক্ষা পেতে কমলালেবু সবচেয়ে উপকারী বন্ধু। এতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’। যে কোনো বয়সীর জন্য ভিটামিন ‘সি’ প্রতিদিন প্রয়োজন হয়। এ ভিটামিন পানিতে দ্রবণীয়। দেহে জমা হয় না। তাই এটির প্রয়োজন মেটাতে প্রতিদিন ভিটামিন ‘সি’ জাতীয় খাবার বা ফল খাওয়া উচিত।

ভিটামিন ‘সি’ ইনফেকশনজনিত সমস্যা, ঘা, ভাইরাস জ্বর, মাম্পস (এক ধরনের অসুখ), জলবসন্ত, ত্বকের কাটা-ছেঁড়ার বিরুদ্ধে অবদান রাখে। ত্বক, চুল, নখ করে উজ্জ্বল ও রোগমুক্ত। লেবুর রস চিনির সঙ্গে খেতে পারেন। এতে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। যাদের ক্রনিক টনসিলাইটিস হয় বেশি অর্থাৎ যাদের বারবার ও খুব দ্রুত টনসিল ফুলে যায়, ব্যথা হয় তাদের জন্য জরুরি পথ্য কমলালেবু। হৃদরোগের রোগী, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসের রোগীরাও খেতে পারেন এ ফল। তবে হালকা টক হওয়া ভালো। বেশি মিষ্টি হলে পরিহার করুন।

গর্ভাবস্থা থেকে মাতৃদুগ্ধ দান পর্যন্ত এ ফল ভীষণ উপকারী। তবে গর্ভাবস্থায় যেসব মায়ের গ্যাসট্রিক সমস্যা হয়, তারা নিজেদের হজম ক্ষমতা বুঝে পরিহার করুন। কিন্তু দেহে (মা ও শিশু) ভিটামিন ‘সি’র ঘাটতি পূরণে বাতাবিলেবু, পাকা কলা, মিষ্টিকুমড়া ও সব ধরনের হলুদ রঙের সবজি খাবেন। তবে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে কমলালেবু যাদের কেনার সামর্থ্য নেই, তারা ভাতের সঙ্গে খেতে পারেন এক টুকরো কাগজিলেবু। এ লেবুও যথেষ্ট পুষ্টিকর।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত